মঙ্গলবার ১২ নভেম্বর, ২০১৯ ইং , ২৮ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৪ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

মেসি আসবেন কী না জানা যাবে সপ্তাখানেকের মধ্যে

অক্টোবর ২১, ২০১৯ | ৬:৩১ অপরাহ্ণ

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট

স্পন্সরদের অনীহা এবং ভেন্যু জটিলতার কারণে নভেম্বরের ফিফা উইন্ডোতে আর্জেন্টিনা-প্যারাগুয়ের ম্যাচ আয়োজনে আগ্রহী নয় বাংলাদেশ, এমনটি জানিয়েছে দেশের ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা বাফুফে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে নভেম্বর মাসে একটি আন্তর্জাতিক প্রীতি ফুটবল ম্যাচ খেলতে ঢাকায় আসার কথা আর্জেন্টিনা ও প্যারাগুয়ের। এর আগেও বেশ কয়েকবার এমন উদ্যোগ নেয়া হলেও কার্যত কোনও ম্যাচেরই দৃশ্যমান অগ্রগতি দেখা যায়নি।

বিজ্ঞাপন

দেশের ফুটবল পাড়ায় কত খবরের ভিড়ে একটা খবর বেশ চাউর হয়েছিল। লিওনেল মেসি আসছেন বাংলাদেশে। এ নিয়ে রীতিমত টুইট করে ঝড়ই তুলে দিয়েছিল প্যারাগুয়ে। আর্জেন্টিনা-প্যারাগুয়ে ম্যাচ নিয়ে ক্লাব পাড়াও ছিল বেশ সরগরম। ওদিকে, নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে এই ম্যাচ খেলার কথা ছিল ফুটবল যাদুকর লিওনেল মেসির।

তবে এই ম্যাচের সবচেয়ে বড় বাধার নাম ছিল ‘শর্ত’। এ বিষয়ে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুস সালাম মুর্শেদী সারাবাংলাকে জানান, 'দুই দলের সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। তবে, এখনও কিছু চূড়ান্ত নয়। আমরা আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছি। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে দুই দলকে আমরা আনার চেষ্টা করছি। কিছু শর্ত সাপেক্ষে তাদের ম্যাচটা হবে। নিরাপত্তা-আর্থিক ব্যাপার সহ কিছু শর্ত পূরণ হলেই তাদের ম্যাচটা হবে। তাছাড়া, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে রাজনৈতিক আরও কিছু আয়োজন থাকবে। তাই এখনই মেসির আসার ব্যাপারে কিছু চূড়ান্ত হয়নি। সপ্তাহখানেকের মধ্যে হয়তো আমরা চূড়ান্ত কিছু জানাতে পারবো।'

এই ধরনের ম্যাচের আয়োজনে নানান শর্ত থাকে। অংশগ্রহণকারী দল, আয়োজক দেশ ও এজেন্টদের শর্ত থাকে অনেক বিষয় নিয়ে। এবার অংশগ্রহণকারী দলগুলোর প্রধান শর্তগুলোর একটি ছিল নিরাপত্তা। সেটার নিশ্চয়তা দিয়েছিল যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন। তবে বাফুফে ও মন্ত্রণালয়ের শর্ত ছিল- ‘এই ম্যাচে মেসির খেলা নিশ্চিত করতে হবে।’

মেসিকে ছাড়া কোনও ম্যাচ ঢাকায় করতে রাজী নয় আয়োজক বাফুফে। যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল কদিন আগে সরাসরি বলে দিয়েছেন, ‘যে প্রতিষ্ঠান ঢাকায় এই ম্যাচ আয়োজন করবে তারা আমাদের কাছে অনুমতি ও নিরাপত্তার নিশ্চয়তার বিষয়ে একটি চিঠি চেয়েছিল। আমরা দিয়েছি। সেখানে বলেছি, আর্জেন্টিনা দলে মেসি থাকতে হবে। আসতে হবে আর্জেন্টিনার পূর্ণাঙ্গ দল। কারণ, অপূর্ণাঙ্গ আর্জেন্টিনা দল আনার মানেই হয় না।’

উল্লেখ্য, ২০১১ সালেও আর্জেন্টিনা দল এসেছিল ঢাকায়। নাইজেরিয়ার বিপক্ষে একটা ম্যাচও খেলেছে তারা। নাইজেরিয়ার বিপক্ষে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে সেই প্রীতি ম্যাচে ৩-১ ব্যবধানে জিতেছিল মেসির দল। ম্যাচটি আয়োজন করতে আনুমানিক ৩০ কোটি টাকা খরচ হয়েছিল আয়োজকদের। এবার খরচ বেড়ে যাচ্ছে বলে সূত্র জানায়। খরচ আনুমানিক ৪০ কোটির উপরে হতে পারে। তাই মেসিকে ছাড়া কোনভাবে এই ম্যাচ মাঠে গড়াচ্ছে না ঢাকায়।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জেএইচ/এমআরপি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন