সোমবার ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ২ পৌষ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৮ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

বিপিএলে পারিশ্রমিক বৈষম্যের তীব্র প্রতিবাদ মুশফিকের

অক্টোবর ২১, ২০১৯ | ৬:৫৫ অপরাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

মোট ১১ দফা দাবি নিয়ে সোমবার (২১ অক্টোবর) হোম অব ক্রিকেট মিরপুর শের-ই-বাংলায় সমবেত হয়েছিলেন জাতীয় দল ও জাতীয় দলের বাইরে থাকা ক্রিকেটাররা। যেখানে বাংলাদেশ ক্রিকেটের ব্যাটিং স্তম্ভ মুশফিকুর রহিমও দাবি রেখেছেন। তার উচ্চারিত এক দফায় সুস্পষ্টভাবে উঠে এসেছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) দেশি ও বিদেশি ক্রিকেটারদের মধ্যকার পারিশ্রমিক বৈষম্য।

বিজ্ঞাপন

দারুণ হাতাশাভরা কণ্ঠে দেশের অন্যতম সেরা এই উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান তুলে ধরলেন দেশের ঘরোয়া ক্রিকেটের সবচাইতে জাঁকজমকপূর্ণ আসরের বিদ্যমান বৈষম্যের কথা।

আরও পড়ুন: ১১ দফা দাবিতে ধর্মঘটে ক্রিকেটাররা, অনিশ্চিত ভারত সফর

তিনি জানান, ‘আমাদের তৃতীয় দাবি বিপিএল নিয়ে। আপনারা জানেন এবারের বিপিএল অন্য নিয়মে হচ্ছে। কিন্তু আমাদের যেটা মূল দাবি সেটা হলো বিপিএল যেন আগের নিয়মে চলে আসে এবং আমাদের স্থানীয় প্লেয়ারদের ন্যায্য মূল্যটা যেন বিদেশি প্লেয়ারদের সাথে থাকে। আমরা দেখি যে বিপিএলে বিদেশি প্লেয়াররা আসে এবং তাদের অনেক পামরিশ্রমিক দেওয়া হয়। কিন্তু স্থানীয়রা সেটা পায় না। বিসিবিকে সেই নিশ্চয়তা দিতে হবে। আপনারা যদি খেয়াল করে দেখেন বিশ্বের অন্যান্য ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগগুলোতে যে যে প্লেয়ার তারা নিলামেই নিশ্চিত করে যে কোন গ্রেডে থাকবে। আমার মনে হয় আমাদেরও সেই সম্মানটা দেওয়া উচিত।’

বিজ্ঞাপন

বিপিএল পঞ্চম আসরে আইকন ক্যাটাগরিতে মুশফিকুর রহিমের পারিশ্রমিক ছিল ৫০ লাখ টাকা। পক্ষান্তরে ক্যারিবিয় টর্নেডো ক্রিস গেইল নিয়েছেন ৩ কোটি। তামিম, মাশরাফি, মাহমুদউল্লাহরাও মুশফিকের সমান পারিশ্রমিকে খেলেছেন। অথচ অ্যালেক্স হেইলস ও কাইরন পোলার্ডদের দিতে হয়েছে প্রায় ২ কোটি টাকা!

অতএব একথা বলাই যায় যে, মুশফিকের দাবিটি কোনো বিবেচনাতেই নিশ্চয়ই অযৌক্তিক নয়।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এমআরএফ/এমআরপি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন