বুধবার ১৩ নভেম্বর, ২০১৯ ইং , ২৯ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৫ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

শিক্ষিত মানুষ কেন ট্রাফিক আইন মানেন না, প্রশ্ন প্রধানমন্ত্রীর

অক্টোবর ২২, ২০১৯ | ১২:৩৬ অপরাহ্ণ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: নিরাপদ সড়ক ব্যবস্থা গড়ে তোলার দায়িত্ব শুধু চালক বা সরকারের নয়, সাধারণ মানুষেরও। তবে দেশের শিক্ষিত মানুষগুলোও কেন ট্রাফিক আইন মানেন না এবার এমন প্রশ্নই তুললেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) সকালে রাজধানীর ফার্মগেটের খামারবাড়ি কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস-২০১৯ উদযাপন উপলক্ষ্যে এক অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সাধারণ মানুষ হয়ত যারা অশিক্ষিত বা যারা জানে না, তাদের কথা আমরা ছেড়েই দিলাম। আমাদের দেশের শিক্ষিতজন, তারা কেন ট্রাফিক আইন মানবে না? এই প্রশ্নটাই আমি রেখে যাচ্ছি। তাদেরকে ট্রাফিক আইন মানতে হবে। এটা হল সবথেকে বেশী গুরুত্বপূর্ণ।’

‘কারণ সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যু হোক, এটা কারও কাছে কাম্য না। আমরা কেউ’ই চাই না। কেউ পঙ্গু হয়ে যাক। এসব দুর্ঘটনায় কত মানুষের জীবন শেষ হয়ে যায়। সেজন্যই আমরা চাই, সবসময় একটা নিরাপদ সড়ক ব্যবস্থা থাকুক। দেশে শান্তি শৃংখলা বজায় থাকুক।’ যোগ করেন প্রধানমন্ত্রী।

সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে দেশবাসীর সহযোগিতা আহ্বান করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘দেশটাকে আমাদের এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। আর সেই লক্ষ্য নিয়েই আমরা কাজ করে যাচ্ছি। কাজেই সকলে নিজ নিজ দায়িত্বটা যথাযথভাবে পালন করবেন। একটা মানুষের ক্ষতি হলে, সে যেই হোক; সে তো কোনো না কোনো পরিবারের। যেই মারা যাক, সে তো কোন না কোন পরিবারের, সে পরিবারটার ভবিষ্যৎ কি হয়? সেটাও তো চিন্তা করতে হবে।’

তাই সবাইকে নিরাপদ সড়ক ব্যবস্থা গড়ে তুলতে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘এই দায়িত্বটা শুধু সরকারের না বা গাড়ি চালকের না, পথচারী থেকে শুরু করে দেশের সব নাগরিকের। কাজেই সবাই যার যার দায়িত্ব পালন করবেন।’

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি একাব্বর হোসেন, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন ফেডারেশনের কার্যকরি সভাপতি ও সাবেক নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্লাহ, নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের নেতা ইলিয়াস কাঞ্চন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সড়ক পরিবহন ও সেতু বিভাগের সচিব নজরুল ইসলাম।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এনআর/জেএএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন