বিজ্ঞাপন

নুসরাত হত্যা মামলার রায় হাইকোর্টে বহাল থাকবে, আশা আইনমন্ত্রীর

October 25, 2019 | 1:17 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: নুসরাত হত্যা মামলার রায় উচ্চ আদালতে বহাল থাকবে কিনা সেই বিষয়ে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, ‘আমার মনে হয় দুই একজন বাদে সবার রায়ই বহাল রাখবেন হাইকোর্ট। শুক্রবার (২৫ অক্টোবর) রাজধানীর গুলশানের অফিসে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী এ কথা বলেন।

বিজ্ঞাপন

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘তাছাড়া এ মামলায় ১২ দোষ স্বীকার করেছে, ৯২ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়েছে। ২/১ জন নারী রয়েছে তাদের মধ্যে ১ জনের বাচ্চাও রয়েছে। উচ্চ আদালত বিশেষভাবে বিবেচনা করলে তাদেরই সাজা কম হতেই পারে।’

রায় কার্যকর করার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘৭ কার্যদিবসের মধ্য নিম্ন আদালতের সব রেকর্ড উচ্চ আদালতে যাবে। মাদরাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলার রায়ের মাধ্যমে এ ঘৃণ্য, নিকৃষ্ট হত্যাকাণ্ডে যারা জড়িত ছিলেন বিজ্ঞ আদালত তাদের ফাঁসির দণ্ডে দণ্ডিত করেছে। এ মামলার ১৬ জন অপরাধী ছিলেন তাদের প্রত্যকেই যড়যন্ত্র এবং এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে প্রত্যেক্ষভাবে জড়িত থাকার কারণে তাদের সর্বোচ্চ সাজা দেওয়া হয়েছে। আমরা আশা করবো নিম্ন আদালতে বিচার শেষ হওয়ার পর উচ্চ আদালতে গেলে সেখানেও মামলার কার্যক্রম দ্রুত নিষ্পত্তির মাধ্যমে এ হত্যাকাণ্ডে অংশগ্রহণ করেছিলেন তাদের দৃষ্টান্তমৃলক সাজা দেবেন। মামলা যাতে কম সময় লাগে সেই বিষয়ে এটর্নি জেনারেলের সাথে কথা বলবো।’

বিজ্ঞাপন

নুসরাত হত্যা মামলায় অধ্যক্ষ সিরাজসহ ১৬ জনের মৃত্যুদণ্ড

নুসরাতের পরিবারের নিরাপত্তা বিষয়ে আনিসুল হক বলেন, ‘যতদিন নিরাপত্তা দেওয়ার প্রয়োজন মনে করবো তত দেওয়া হবে। কেউ যদি তার পরিবারকে হুমকি-ধামকি দেয় তাদেরও আইনের আওতায় এনে সাজা দেওয়া হবে।’

বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট বিজ্ঞ আদালত ও পাবলিক প্রসিকিউটরকে ধন্যবাদ জানিয়ে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘তারা অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে যথাযথ মর্যাদায় মামলাটির বিচারকার্য শেষ করেছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আইনের শাসন প্রতিষ্ঠানে বদ্ধপরিকর। আপনারা দেখেছেন, প্রধানমন্ত্রী বিচারহীনতার সংস্কৃতির দেশকে আইন প্রয়োগের মাধ্যে সংস্কৃতিতে ফিরিয়ে এনেছেন। নুসরাত হত্যা মামলার রায় তার একটি দৃষ্টান্ত উদাহরণ। আমরা আইনের শাসনে বিশ্বাস করি।’

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে কুমিল্লার আলোচিত তনু হত্যা মামলা বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘তনু হত্যা মামলায় এখনও চার্জশিট দাখিল করা হয়নি। এর আগে আমাদের হাতে কিছু নেই, পুলিশ তদন্ত করে চার্জশিট দিলে মামলার বিচারের জন্য এগোনো যাবে।’

বিজ্ঞাপন

উল্লেখ্য, মাদরাসা ছাত্রী নুসরাতকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলার ১৬ জনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার (২৪ অক্টোবর) ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশীদ এই রায় ঘোষণা করেন। মৃত্যুদণ্ড ছাড়াও রায়ে প্রত্যেক আসামিকে এক লাখ টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। এই টাকা নুসরাতের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ হিসেবে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

সারাবাংলা/এআই/এমও

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন