বৃহস্পতিবার ৩০ জানুয়ারি, ২০২০ ইং

গুজব ঠেকাতে সাংবাদিকদের ভূমিকা রাখার আহ্বান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

অক্টোবর ২৭, ২০১৯ | ৬:৫২ অপরাহ্ণ

ঢাবি করেসপন্ডেন্ট

ঢাবি: সরকার প্রায়ই গুজব-উসকানির মুখোমুখি হয়। গণমাধ্যমই এই তথ্যবিভ্রান্তি থেকে জনগণকে রক্ষা করতে পারে। এজন্য গুজব প্রতিরোধে সাংবাদিকদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান।

বিজ্ঞাপন

রোববার (২৭ অক্টোবর) দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) মিলনায়তনে ‘সেকেন্ড ন্যাশনাল জার্নালিজম স্টুডেন্টস ফেস্ট’ এর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। বাংলাদেশ জার্নালিজম স্টুডেন্টস কাউন্সিল আয়োজিত এবারের ন্যাশনাল ফেস্টের প্রতিপাদ্য ছিল ‘গুজব প্রতিরোধে গণমাধ্যমের ভুমিকা’।

আসাদুজ্জামান খান বলেন, ‘প্রতিদিন আমাদের দেশে নানাভাবে গুজব ছড়াচ্ছে। আর এটা সবচেয়ে বেশি ছড়াচ্ছে ফেসবুকের মাধ্যমে। আমরা প্রথমে গুজব দ্বারা নানাভাবে প্রভাবিত হই। তারপর যখন গণমাধ্যমগুলো এ নিয়ে কথা বলে, তখন আমরা প্রকৃত ঘটনা জানতে পারি। গুজব প্রতিরোধের কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন, আপনারা যেকোনো ঘটনা আগে নিজের বিবেক দ্বারা বিবেচনা করুন, তারপর বিশ্বাস করুন।’

বিজ্ঞাপন

অনুষ্ঠানের উদ্বোধক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, ‘আমেরিকান প্রেক্ষাপটে সাংবাদিকতাকেন্দ্রিক পড়াশোনা একবিংশ শতাব্দীর চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সর্বশ্রেষ্ঠ লেখাপড়া। নিজেদের এবং সমাজকে স্মরণ করে নিজেদের সেভাবেই প্রস্তুত করতে হবে।’

সংবেদনশীল মানুষ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, ‘সংবেদনশীল মানুষ মানে উদার ও নৈতিকতাসম্পন্ন মানুষ। উদার মনমানসিকতা না থাকলে একজন ভালো সাংবাদিক হওয়া যাবে না। কারণ একজন ভালো মানুষই হতে পারে একজন ভালো সাংবাদিক।’

অনিষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন। গুজব প্রতিরোধে গণমাধ্যমকে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ভূয়া সংবাদের প্রভাবে সারাবিশ্ব আজ উদ্বিগ্ন। তাই গণমাধ্যমকে সবসময় দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখতে হবে। তারা তাদের নিজেদের মতামত প্রকাশ করেতে পারে না। তাদের সবসময় নিরপেক্ষভাবেই সংবাদ প্রকাশ করতে হয়।’

জার্নালিজম স্টুডেন্টস কাউন্সিলের সভাপতি সঞ্জিত সরকার উজ্জলের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক ইমরান আহমেদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে সাবেক সচিব আবু আলম মো. শহিদ খান, স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটির সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম অধ্যয়ণ বিভাগের চেয়ারপারসন অধ্যাপক ড. কাজী আব্দুল মান্নান, ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটির সাংবাদিকতা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সেলিম আহমেদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সারাবাংলা/কেকে/এমও

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন