বিজ্ঞাপন

ঢাকা-মদিনা-ঢাকা রুটে বিমানের নতুন ফ্লাইট উদ্বোধন

October 28, 2019 | 5:30 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ঢাকা-মদিনা-ঢাকা রুটে বিমান বাংলাদেশের নতুন ফ্লাইট উদ্বোধন হয়েছে। এখন থেকে ঢাকা থেকে মদিনায় সপ্তাহে তিনদিন (শনি, সোম ও বুধ) এবং চট্টগ্রাম থেকে একদিন (বৃহস্পতিবার) বিমানের ফ্লাইট চলবে।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (২৮ অক্টোবর) হযরত শাহ্জালাল আন্তজার্তিক বিমানবন্দরে নতুন এ রুটের উদ্বোধন করেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ‘বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ করা হচ্ছে। আন্তর্জাতিক ও অভ্যন্তরীণ অপারেশনের পরিধি এবং ব্যাপ্তি ধীরে ধীরে বাড়ানো হচ্ছে। প্রতিষ্ঠার পর থেকে গত ৪৮ বছরে বিমান নানা বিবর্তনের মধ্য দিয়ে সময় অতিবাহিত করলেও দেশের এভিয়েশন শিল্পের বিকাশে প্রতিষ্ঠানটি পথ প্রদর্শক।’

বিজ্ঞাপন

তিনি আরও বলেন, ‘বিমান বর্তমানে ঢাকা-জেদ্দা-ঢাকা রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করছে। এছাড়াও আন্তর্জাতিক রুটগুলোর মধ্যে রয়েছে দুবাই, আবুধাবি, মাস্কট, দোহা, লন্ডন, কুয়েত, দাম্মাম, কাঠমান্ডু, ব্যাংকক, কুয়ালালামপুর, সিঙ্গাপুর, ইয়াঙ্গুন, দিল্লি এবং কলকাতা। আজ থেকে ঢাকা-মদিনা-ঢাকা ফ্লাইট পরিচালনার মধ্য দিয়ে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স-এর নেটওয়ার্ক সম্প্রারণ আরও এক ধাপ এগিয়ে গেল।’

বিমান প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘মদিনায় মহানবী হযরত মুহম্মদ (সা.) এর রওজা শরীফ পরিদর্শন, হজ এবং ওমরাহ পালন করতে বিপুল সংখ্যক ধর্মপ্রাণ বাংলাদেশি প্রতিবছর সৌদি আরব যান। এছাড়াও মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে বিভিন্ন পেশার প্রবাসী বাংলাদেশি ও বিপুল সংখ্যক বাংলাদেশি শ্রমিক বাস করেন। ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের যাতায়াত ও দেশের সাথে প্রবাসী বাংলাদেশিদের যোগাযোগ আরও সহজ ও স্বাচ্ছন্দময় করতে প্রধানমন্ত্রীও ঢাকা-মদিনা সরাসরি যোগাযোগ স্থাপনে আন্তরিকভাবে আগ্রহী।এ পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা-মদিনা-ঢাকা সরাসরি ফ্লাইট চালু হলো।

বিজ্ঞাপন

তিনি আরও জানান, বিমান বাংলাদেশের বহরে ১০টি সর্বাধুনিক উড়োজাহাজ যুক্ত হয়েছে। এ বছরই আরও ২টি নতুন প্রজন্মের বোয়িং ৭৮৭-৯ ড্রিমলাইনার বহরে যুক্ত হবে। বহর পরিকল্পনা একটি চলমান প্রক্রিয়া। এই ধারা অব্যাহত রাখার লক্ষ্যে আমরা কানাডা কর্মাশিয়াল কোম্পানি (সিসিসি) থেকে স্বল্প পাল্লার ৩টি নতুন ড্যাশ-৮ কিউ ৪০০ কিনেছি। ২০২০ সালের মার্চ-জুন মাসের মধ্যে এই বিমানগুলো বহরে যুক্ত হবে। সম্প্রসারিত এই বহর দিয়ে চলমান রুটসমূহে ফ্লাইটের সংখ্যা বাড়ানো সম্ভব হয়েছে। সেইসঙ্গে নতুন গন্তব্য সংযোজন প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখা হয়েছে।

মো. মাহবুব আলী বলেন, ‘২০২০ সালে ম্যানচেস্টার, নারিতা, কলম্ব, মালে এবং নিউইয়র্ক ফ্লাইট পরিচালনার প্রস্তুতি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। দেশের এভিয়েশন শিল্প বিকাশে বিমানের নিরলস প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখতে সকলের সহযোগিতা ও সমর্থন প্রয়োজন।’

বিজ্ঞাপন

এ সময় বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মহিবুল হক বলেন, ‘বিমানের পিছিয়ে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই। মধ্যপ্রাচ্যে বিমানের যে সম্ভাবনাময় বাজার রয়েছে, সেই বাজার দখল করতে হবে।’

সারাবাংলা/জেআর/পিটিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন