বিজ্ঞাপন

‘দূতাবাসগুলো দায়িত্ব পালন করলে শ্রমিকরা লাশ হয়ে ফিরত না’

November 1, 2019 | 5:16 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: প্রবাসী কল্যাণ সংস্থা ও প্রবাসে দূতাবাসগুলো তাদের দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করছে না। তাদের অনিয়ম ও অবহেলার বিচার যদি হতো তাহলে শত শত গৃহশ্রমিককে লাশ হয়ে দেশে ফিরতে হতো না বলে অভিযোগ করেছেন সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরাম। শুক্রবার (১ নভেম্বর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আয়োজিত সমাবেশে ফোরামের নেতারা এ সব কথা বলেন।

বিজ্ঞাপন

গত ১০ মাসে সৌদি আরবসহ বিভিন্ন দেশ থেকে ১১৯ নারী গৃহকর্মী লাশ হয়ে ফিরেছে। সৌদি আরবে নারী গৃহকর্মী নির্যাতন হত্যা বন্ধ ও প্রবাসী নারী শ্রমিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জোরদার দাবি জানিয়েছে ফোরামটি।

বক্তারা বলেন, ইন্দোনেশিয়া ও ফিলিপাইনে গৃহকর্মী পাঠানো বন্ধ করে দিলে ২০১৫ সালে বাংলাদেশের সঙ্গে চুক্তি করে সৌদি আরব। চলতি বছরের জুলাই মাস পর্যন্ত ৩ লাখ নারী কর্মী গেছেন সৌদি আরবে। দুই বছরের চুক্তিতে যাওয়া নারী গৃহকর্মীরা মাসে বেতন পান বাংলাদেশি টাকায় মাত্র ১৭ হাজার। চুক্তি অনুযায়ী গৃহকর্মীদের বিনা খরচে সৌদি আরব যাওয়ার কথা, কিন্তু দেখা যায় অধিকাংশ ক্ষেত্রেই ১০ হাজার থেকে এক লাখ টাকা লেগে যায় সৌদি আরব যেতে।

বিজ্ঞাপন

বক্তারা আরও বলেন, প্রবাসী শ্রমিকরা নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। তারা বিদেশে কাজে গিয়ে লাশ হয়ে ফিরছেন। নির্যাতন সইতে না পেরে সব খুইয়ে দেশে ফিরে আসছেন। প্রবাসী কল্যাণ সংস্থা ও প্রবাসে দূতাবাসগুলো তাদের দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করছে না। এ সকল অনিয়ম ও অবহেলার বিচার যদি হতো তাহলে শত শত গৃহশ্রমিককে লাশ হয়ে দেশে ফিরতে হতো না বলে দাবি করেন নেতারা।

সভাপতি রওশন আরা রুশোর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক শম্পা বসু, ঢাকা নগর শাখার সদস্য রুখসানা আফরোজ আশা, নারী নেত্রী প্রীতিলতাসহ প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এআই/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন