মঙ্গলবার ১৯ নভেম্বর, ২০১৯ ইং , ৫ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২১ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

মেকআপ তোলার ৫ প্রাকৃতিক উপায়

নভেম্বর ৭, ২০১৯ | ১০:৩০ পূর্বাহ্ণ

লাইফস্টাইল ডেস্ক।।

দিনশেষে ক্লান্ত হয়ে ঘরে ফেরার পর কোনমতে ঘুমাতে পারলেই হাফ ছেড়ে বাঁচা যায়। কিন্তু ক্লান্তি যতই থাকুক, ঘুমানোর আগে মেকআপ তুলতেই হবে। তা না হলে ত্বকে র‌্যাশ, চুলকানি, কালো ছোপ পড়াসহ নানা সমস্যা হতে পারে।

বিজ্ঞাপন

বাজারে মেকআপ রিমুভার কিনতে পাওয়া যায়, যাতে থাকে নানা ধরনের রাসায়নিক পদার্থ। ফলে দীর্ঘদিন এসব ব্যবহার করলে ত্বকের নানা ক্ষতি হতে পারে। ত্বক সুরক্ষিত রাখতে আজকাল অনেকেই প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার করে মেকআপ তোলার পক্ষপাতি। আসুন জেনে নেই, সেই প্রাকৃতিক উপাদানগুলো সম্পর্কে-

দুধ

মেকআপ তোলার জন্য ত্বকে দুধ ব্যবহার বেশ কার্যকর। ত্বকের আর্দ্রতা ও ময়েশ্চারাইজার ধরে রাখে এটি। একটি বাটিতে পরিমাণমতো দুধ নিয়ে তাতে পাতলা সুতি কাপড় বা তুলার বল ভিজিয়ে ত্বকে লাগিয়ে নিন। এবার ধীরে ধীরে মেকআপ পরিষ্কার করুন। মেকআপ আলতোভাবে তুলে ফেলতে হবে। এতে ত্বকের ক্ষতি হবে না। ঠোঁট ও চোখের প্রসাধনী তুলতেও দুধ ব্যবহার করতে পারেন।

বিজ্ঞাপন

বেকিং পাউডার ও মধু

এই দুটি উপাদান ক্লিনজার হিসেবে খুবই ভালো। এক চামচ মধুতে সামান্য বেকিং পাউডার মিশিয়ে ত্বকে লাগান। ত্বক পরিষ্কার হয়ে গেলে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। খুব সহজেই মেকআপ উঠে যাবে।

নারকেল তেল

অনেকসময় হাতের নাগালে কিছুই পাওয়া যায় না। আবার নতুন করে কিছু বানানোর মতোও সময় কিংবা ধৈর্যও থাকে না। এমন পরিস্থিতিতেও মেকআপ তোলা নিয়ে চিন্তার কারণ নেই। কারণ ঘরে নারকেল তেল তো থাকেই। তুলার বলে নারকেল তেল নিয়ে মুখ, চোখ ও ঠোঁটের প্রসাধনী তোলা যায়।

ত্বকের মলিনতা দূর করতেও নারকেল তেল উপকারি।

শসা

ত্বক পরিচর্যায় যেমন শসার জুড়ি মেলা ভার, তেমনি মেকআপ ওঠানোর ক্ষেত্রেও এটি অত্যন্ত কার্যকরী। যাদের মুখে ব্রণ আছে তাদের জন্য শসার রস খুবই উপযোগি। পরিমাণমতো শসা টুকরো করে কেটে ব্লেন্ড করে নিন। এবার মিশ্রণটি ত্বকে লাগান। শসার রস ফ্রিজে রেখে অনেকদিন পর্যন্ত সংরক্ষণ করতে পারেন।

ভাপ নেওয়া

স্টিম বা ভাপ নেওয়া হলো মেকআপ তোলার অন্যতম ভালো উপায়। বিশেষ করে মেকআপের সবচেয়ে নীচের স্তর পরিষ্কার করতে ভাপ নেওয়া জরুরী। ভাপ নিলে লোমকূপের গোড়া খুলে যায় এবং ত্বক ভেতর থেকে পরিষ্কার হয়।

মেকআপ রিমুভার হিসেবে প্রাকৃতিক এইসব উপাদান হাতের নাগালে পাওয়া যায় এবং দামেও সস্তা। ত্বকের আর্দ্রভাব বজায় রাখতে প্রাকৃতিক উপাদানের বিকল্প নেই। সব ধরনের ত্বকের জন্যই এগুলো উপযোগী।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/টিসি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন