শনিবার ৭ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ২৩ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ৯ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

শিশু আয়েশাকে ধর্ষণ ও হত্যায় আসামি নাহিদের বিরুদ্ধে চার্জশিট

নভেম্বর ৭, ২০১৯ | ১০:৪৩ পূর্বাহ্ণ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: রাজধানীর গেন্ডারিয়ায় দুই বছরের শিশু আয়েশা মনিকে ধর্ষণের পরে হত্যার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় গ্রেফতার মো. জান্নাতুল ওয়াইশ ওরফে নাহিদ হোসেনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেছেন পিবিআই-এর উপপুলিশ পরিদর্শক সাদেকুর রহমান। বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) চার্জশিট দাখিল করা হয়।

বিজ্ঞাপন

শিশু আয়েশার হত্যা মামলার চার্জশিট যেকোনো সময় আদালতে

মামলার এ তদন্ত কর্মকর্তা সম্প্রতিকালে আদালতের সংশ্লিষ্ট জিআর শাখায় চার্জশিট জমা দেন। চার্জশিটটি আগামী ৮ ডিসেম্বর আদালতে উত্থাপন করা হবে বলে আদালত সূত্রে জানা গেছে।

গেন্ডারিয়ার দীননাথ সেন রোডের ওই বস্তিতে মা-বাবা ও তিন বোনের সঙ্গে থাকতো শিশু আয়েশা। অন্যান্য দিনের মতো ৫ জানুয়ারি বিকেলেও সে খেলতে বের হয়। সন্ধ্যার দিকে টিনশেড বস্তির পাশের চার তলা বাড়ির সামনে আয়েশার রক্তাক্ত নিথর দেহ পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয়রা। পরে আয়েশাকে দ্রুত ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। অবস্থার অবনতি হলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

বিজ্ঞাপন

আয়েশার হত্যার পরদিন ৬ জানুয়ারি তার বাবা ইদ্রিস বাদী হয়ে গেন্ডারিয়া থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলাটি দায়েরের পর নাহিদকে গ্রেফতারে সচেষ্ট হয় পুলিশ। তবে গ্রেফতার হওয়ার আগে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে নাহিদ বাসার তৃতীয় তলার খোলা জানালা দিয়ে লাফ দেয়। এতে তার দুই পা ভেঙে যায়। এরপরে তাকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়। চিকিৎসা শেষে পুলিশ তাকে রিমান্ডে নেয়। রিমান্ড চলাকালে নাহিদ স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে সম্মত হওয়ায় গেন্ডারিয়া থানা পুলিশ তাকে আদালতে হাজির করে। কিন্তু পরবর্তী সময়ে নাহিদ জবানবন্দি দিতে অস্বীকৃতি জানালে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

পরে চলতি বছরের ৮ এপ্রিল নাহিদের ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করে পিবিআই। আদালত দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রিমান্ড শেষে ২৫ এপ্রিল তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। এরপর থেকে নাহিদ কারাগারেই রয়েছে। নাহিদের পক্ষের আইনজীবীরা কয়েকবার জামিন আবেদন করলে তা নামঞ্জুর করে আদালত।

জানা যায়, আসামি নাহিদের স্ত্রী ৫ বছর আগে মারা যায়। এরপর আর বিয়ে করেনি। ১২ বছরের মেয়েকে নিয়ে ওই বাসায় থাকে নাহিদ।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এআই/এমআই

Advertisement
বিজ্ঞাপন

Tags: , , ,

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন