মঙ্গলবার ১৯ নভেম্বর, ২০১৯ ইং , ৫ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২১ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

বাবরি মসজিদ মামলার রায় আজ, নিরাপত্তার চাদরে ভারত

নভেম্বর ৯, ২০১৯ | ৫:২৪ পূর্বাহ্ণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ভারতে বাবরি মসজিদ ও রাম জন্মভূমি নিয়ে করা ঐতিহাসিক অযোধ্যা মামলার রায় দেওয়া হবে আজ (০৯ নভেম্বর) শনিবার। সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈর নেতৃত্বে ৫ সদস্যের বেঞ্চ স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ১০টায় মামলার রায় ঘোষণা করবেন। খবর এনডিটিভির।

বিজ্ঞাপন

রায়ের পর যাতে দাঙ্গা না হয়, সে জন্য পশ্চিমবঙ্গসহ ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সম্প্রীতি বজায় রাখার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, রায়ে হিন্দু-মুসলিম কারোরই হার-জিত হবে না।

এদিকে উত্তর প্রদেশের অযোধ্যা শহরে নেওয়া হয়েছে নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা।  মোতায়েন করা হয়ে আধা সেনা সদস্য। নজরদারিতে রয়েছে ধর্মীয় উপাসনালয়গুলো। গত ২০ অক্টোবর থেকে সেখানে জারি আছে ১৪৪ ধারা। এছাড়া ১০ নভেম্বর থেকে কার্যকর হবে কারফিউ, যা মামলার রায় ঘোষণার পর চার দিন বলবৎ থাকবে।

রাজ্যের পুলিশপ্রধান ওম প্রকাশ সিং জানিয়েছেন, তীক্ষ্ণ নজর রাখা হবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। যাতে কেউ উসকানি দিয়ে সহিংসতা তৈরির পাঁয়তারা না করতে পারে। ছোট-বড় যেকোনো বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ সচেষ্ট বলে জানিয়েছেন তিনি। এখন পর্যন্ত প্রায় ৫০০ জনকে আটক করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বিতর্ক কি নিয়ে?

অযোধ্যার ২.২৭ একরের ওই পবিত্রভূমি রামের জন্মস্থান হিসেবে বিশ্বাস করে হিন্দুধর্মাবলম্বীরা। অপরদিকে মধ্যযুগের বাবরি মসজিদে বহুকাল যাবৎ প্রার্থনা করে আসছে মুসলিমরা। হিন্দুদের দাবি, মুসলিম শাসকরা মন্দির ভেঙে ১৬ শতকে এখানে মসজিদ গড়েছিলেন। আর তাই ১৯৯২ সালে উগ্রবাদী হিন্দুরা বাবরি মসজিদ ভেঙে ফেলে। এ নিয়ে দুপক্ষের দাঙ্গায় ২ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছিল।

আগের রায়ে যা বলা হয়েছিল

বিতর্কিত এই ভূমির মালিকানার নিষ্পত্তি চেয়ে এলাহাবাদ হাইকোর্টে ২০০২ সালে দায়ের করা হয় মামলা। ২০১০ সালে দেওয়া এক রায়ে আদালত পবিত্র এই ভূমিকে তিনভাগে ভাগ করার আদেশ দেন। যেখানে মসজিদের স্থানটিকে মন্দিরের জন্য হিন্দুদের, পাশেই মসজিদের জন্য মুসলিমদের ও অপর অংশটি নির্মোহী আখড়াকে দেওয়া হয়।

তবে হিন্দু বা মুসলিম কোনো পক্ষই ওই রায়ে সন্তুষ্ট হয়নি। এবার সুপ্রিমকোর্ট চূড়ান্ত রায় জানাবেন।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এনএইচ

Advertisement
বিজ্ঞাপন

Tags: ,

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন