মঙ্গলবার ১৯ নভেম্বর, ২০১৯ ইং , ৫ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২১ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

চট্টগ্রামের উপকূলীয় ৬ উপজেলার বাসিন্দাদের সরানোর তোড়জোড়

নভেম্বর ৯, ২০১৯ | ১:১৬ অপরাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম ব্যুরো: ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে ৯ নম্বর বিপদসংকেত জারির পর চট্টগ্রামের ৬টি উপকূলীয় উপজেলার লোকজনকে বাড়িঘর ছেড়ে যেতে মাইকিং করছে প্রশাসন। বাসিন্দাদের জোর করে সরানোর উদ্যোগও প্রশাসনের আছে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

তবে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবিলায় সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের। নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খোলার পাশাপাশি জেলার উপকূলীয় উপজেলাগুলোতে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

জেলা ত্রাণ ও পুর্নবাসন কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ জানিয়েছেন, জেলায় ৪৭৯টি স্থায়ী সাইক্লোন সেন্টার এবং প্রায় চার হাজার স্কুল-কলেজের পাকা ভবন উপকূলের বাসিন্দাদের আশ্রয় দেওয়ার জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে।

চট্টগ্রামের উপকূলীয় এলাকা বিশেষ করে সন্দ্বীপ, বাঁশখালী, আনোয়ারা, কর্ণফুলী, সীতাকুণ্ড, মিরসরাই উপজেলায় ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা থেকে সরে যেতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাইকিং চলছে।

বিজ্ঞাপন

ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবিলায় সর্বাত্মক প্রস্তুতি নিয়েছে ফায়ার সার্ভিস। চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারে ২৮টি ইউনিট প্রস্তুত রাখা হয়েছে।চট্টগ্রামের ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক জসিম উদ্দিন জানান, রিজার্ভ ও ভলান্টিয়ারসহ ১০টি রেসকিউ গাড়ি উপকূলে পাঠানো হয়েছে। তারা ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় থাকা লোকজনকে সরানোর চেষ্টা করছে।

এদিকে, চট্টগ্রাম মহানগরীসহ আশেপাশের এলাকায় মেঘলা আবহাওয়া বিরাজ করছে। কোথাও কোথাও মাঝে মাঝে টিপ টিপ বৃষ্টি হচ্ছে। নগরীতে যানবাহন চলাচল কমে গেছে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/আরডি/এমও

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন