বৃহস্পতিবার ১২ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ২৮ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৪ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

আপনাকে খুব মিস করি স্যার

নভেম্বর ১৩, ২০১৯ | ৩:৩০ অপরাহ্ণ

রিয়াজ, অভিনেতা

ছবি করতে গিয়ে আপনার সঙ্গে আমার অনেক স্মৃতি। একজন মানুষ হিসাবে আপনি অসাধারন। লেখক হিসেবে বা একজন কথাসাহিত্যিক হিসেবে প্রায় সব বাংলা ভাষা-ভাষীর প্রিয় আপনি।

বিজ্ঞাপন

আপনার সঙ্গে আমার অনেক ব্যক্তিগত স্মৃতি। আমি যখন নুহাশ পল্লীতে শুটিংয়ে যেতাম প্রায় দিনই কাজ শেষ হতে হতে অনেক রাত হয়ে যেতো। কাজ শেষ করেও আপনি জেগে থাকতেন যতক্ষণ না আমি খেতাম। আমার শোবার ব্যবস্থা ভালো মতো হয়েছে কিনা তা নিশ্চিত না করে আপনি কখনো ঘুমাতে যেতেন না।

আপনার মতো এতো বড় মাপের একজন মানুষ এসব না করলেও পারতেন। আমরা কিছুই মনে করতাম না। কিন্তু আপনি সবসময় এভাবে করে গেছেন। শুধু আমার জন্য নয়। ইউনিটের সবার জন্য।

নুহাশ পল্লীতে যাওয়ার জন্য আমি সবসময় মুখিয়ে থাকতাম। কারণ একটাই – আপনি। আপনার সাহচার্য। যতটা না শুটিং, তারচেয়েও বেশী আপনার সঙ্গ, আপনার আন্তরিকতা, আপনার গল্প, আপনার ভালোবাসা। কি যে এক আকর্ষণ ছিল আপনার প্রতি। বাইরে থেকে দেখলে আপনাকে খুব রাগি মানুষ মনে হত। কিন্তু আমরা জানি ভেতরের আপনি এক অন্যরকম মানুষ। আমি খুব সৌভাগ্যবান যে আপনার মতো অসাধারন মানুষের সংস্পর্শে আসতে পেরেছিলাম, আপনার ভালোবাসা পেয়েছিলাম।

বিজ্ঞাপন

আপনি জন্মদিন পালন করতে চাইতেন না। কিন্তু আপনি জানতেন কিছু পাগল আছে যারা ঠিকই এসে হাজির হবে আপনার দখিন হাওয়ায়। আপনি আমাদের জন্য রান্না করিয়ে রাখতেন। ছোট্ট একটা উপহার হয়তো আমরা নিতাম আপনার জন্য। খুব ধমক দিতেন যে কেন টাকা খরচ করে উপহার নিয়েছি, কিন্তু আমরা বুঝতে পারতাম, সেটা হাতে নিয়ে আপনি ভীষন খুশি হতেন।

আমাদের যে কোন দুঃখ-কষ্টে আপনিও কষ্ট পেতেন। আমরা যখন শুটিং করছি, আপনি ক্যামেরার পেছনে দাঁড়িয়ে আমাদের দৃশ্য বুঝিয়ে দিচ্ছেন। আমরা দেখেছি, যেকোনও আবেগি দৃশ্যে আপনিও আবেগপ্রবণ হয়ে যেতেন। আপনার চোখে পানি আসতো। আপনি লুকিয়ে চোখ মুছতেন। আমরা ভুলে যেতাম যে আমরা শিল্পী, নিশ্চুপ দর্শক হয়ে তাকিয়ে থাকতাম আপনার দিকে। এতোটা আবেগি একজন মানুষ আমি আর কখনো দেখিনি।

এমন একজন মানুষের সংস্পর্শ, সত্যিই আমার খুব প্রয়োজন ছিল। আমি ধন্য।

আপনি যেখানেই থাকুন, ভালো থাকুন স্যার। আপনার জন্য দোয়া করা ছাড়া আমার আর কিছুই করার সাধ্য নেই। আপনার আত্মা শান্তি পাক। আপনাকে খুব মিস করি স্যার। প্রতিনিয়ত, প্রতি মুহুর্তে ... খুব খুব মিস করি। আমরা আপনাকে ভুলিনি। ভোলা সম্ভবও নয়। জীবনের শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত আপনি থাকবেন আমাদের হৃদয়ে …

 

অনুলিখন: আশীষ সেনগুপ্ত

প্রতিকৃতি কৃতজ্ঞতা: শিল্পী অসীম চন্দ্র রায়

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এএসজি/পিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন