শনিবার ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ৩০ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৬ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

আয়কর মেলা: ১১৩ কোটি থেকে লক্ষ্যমাত্রা তিন হাজার কোটি টাকা

নভেম্বর ১৩, ২০১৯ | ১১:১৭ অপরাহ্ণ

গোলাম সামদানী, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: এবারের দশম আয়কর মেলা ২০১৯-এ আয়কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৩ হাজার কোটি টাকা। ২০১০ সালে অনুষ্ঠিত প্রথম আয়কর মেলায় এর পরিমাণ ছিল মাত্র ১১৩ কোটি টাকা। মাত্র ৯ বছরের ব্যবধানে জাতীয় রাজস্ব রোর্ডের (এনবিআর) আয়কর মেলায় কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা বেড়েছে সাড়ে ২৬ গুণ। আগামীকাল বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) রাজধানীর বেইলি রোডের অফিসার্স ক্লাবে শুরু হচ্ছে সাত দিনের এই আয়কর মেলা।

বিজ্ঞাপন

আরও পড়ুন- ১৪ নভেম্বর শুরু হচ্ছে দশম আয়কর মেলা

এনবিআর চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভুঁইয়া সারাবাংলাকে বলেন, আয়কর মেলায় শুরু থেকেই আমরা ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি। প্রতিবছর মেলায় কর আদায় ও আয়কর রিটার্ন দাখিলের পরিমাণ বাড়ছে। আমরা আশা করছি, এবারের আয়কর মেলায় তিন হাজার কোটি টাকা আয়কর আদায় হবে। সেটা হলে তা অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে যাবে।

৩০ নভেম্বর পর্যন্ত জমা দেওয়া যাবে আয়কর

বিজ্ঞাপন

এবারের আয়কর মেলা ১৪ নভেম্বর থেকে শুরু হয়ে আগামী ২০ নভেম্বর পর্যন্ত চলবে। এর মধ্যে আটটি বিভাগীয় শহরে ১৪ নভেম্বর থেকে শুরু হয়ে ছুটির দিনসহ টানা সাত দিন মেলা চলবে। তবে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে মেলা দুয়েকদিন পর শুরু হলেও ২০ নভেম্বরের মধ্যে সব স্পটের আয়কর মেলা শেষ হবে। তবে আয়কর মেলায় যারা রিটার্ন দাখিল করতে পারবেন না, তারা আগামী ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত নিজ নিজ কর অঞ্চলে তা দাখিল করতে পারবেন।

মেলায় আয়কর আদায়ের পরিমাণ ধারাবাহিকভাবে বাড়ছে

২০১০ সাল থেকে প্রতিবছর আয়কর ধারাবাহিকভাবে বাড়ছে আয়কর আদায় ও রিটার্ন দাখিলের পরিমাণ। প্রথম আয়কর মেলায় আয়কর আদায় হয়েছিল ১১৩ কোটি টাকা, রিটার্ন দাখিল হয়েছিল ৫২ হাজার ৫৪৪টি। পরের বছর ২০১১ সালে আয়কর আদায় হয়েছিল ৪১৪ কোটি টাকা, রিটার্ন জমা পড়েছিল ৬২ হাজার ২৭২টি। পরের বছরগুলোর মধ্যে ২০১২ সালে আয়কর আদায় হয় ৮৩১ কোটি টাকা, রিটার্ন দাখিল হয় ৯৭ হাজার ৮৬৭টি; ২০১৩ সালে আয়কর আদায় হয় ১ হাজার ১১৭ কোটি টাকা, রিটার্ন দাখিল হয় ১ লাখ ৩২ হাজার ১৭টি; ২০১৪ সালে আয়কর আদায় হয় ১ হাজার ৬৭৫ কোটি টাকা, রিটার্ন দাখিল হয় ১ লাখ ৪৯ হাজার ৩০৯টি; ২০১৫ সালে আয়কর আদায় হয় ২ হাজার ৩৫ কোটি টাকা, রিটার্ন দাখিল হয় ১ লাখ ৬১ হাজার ৬০টি; ২০১৬ সালে আয়কর আদায় হয় ২ হাজার ১২৯ কোটি টাকা, রিটার্ন দাখিল হয় ১ লাখ ৯৪ হাজার ৫৫৯৮টি; ২০১৭ সালে আয়কর আদায় হয় ২ হাজার ২১৭ কোটি টাকা, রিটার্ন দাখিল হয় ৩ লাখ ৩৫ হাজার ৪৮৭ টি; এবং সর্বশেষে ২০১৮ সালে নবম আয়কর মেলায় আয়কর আদায় হয় ২ হাজার ৪৬৮ কোটি ৯৪ লাখ টাকা এবং রিটার্ন দাখিল হয় ৪ লাখ ৮৭ হাজার ৫৭৩টি।

ধাপে ধাপে আয়কর মেলা

বৃহস্পতিবার দুপুর ১টায় রাজধানীর বেইলি রোডের অফিসার্স ক্লাবে আনুষ্ঠানিকভাবে দশম আয়কর মেলা উদ্বোধন করবেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। তবে সকাল ৯টা থেকেই মেলার মাঠ উন্মুক্ত থাকবে করদাতাদের জন্য। এবারের আয়কর মেলা সারাদেশের ৬৪টি জেলা ও ৫৬টি উপজেলাসহ মোট ১২০টি স্পটে অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম দিন আটটি বিভাগীয় শহরসহ ১৪টি জেলায় এবং তিনটি উপজেলায় আয়কর মেলা শুরু হবে। এর মধ্যে বিভাগীয় শহরগুলোতে ছুটির দিনসহ টানা সাত দিন চলবে মেলা। তবে জেলা শহরগুলোতে চার দিন এবং উপজেলা পর্যায়ে মেলার ব্যাপ্তি হবে দুই দিন। ৫৬টি উপজেলার মধ্যে আটটি উপজেলায় আয়কর মেলা হবে একদিনের জন্য।

আয়কর মেলায় মোবাইল ব্যাংকিং

গ্রাহকদের সুবিধার জন্য এবার আয়কর মেলায় মোবাইল ব্যাংকিং সুবিধা চালু করা হয়েছে। কোনো গ্রাহক চাইলেই রকেট, ইউপে, নগদ বা শিওর ক্যাশের মতো মোবাইল ব্যাংকিং প্ল্যাটফর্ম থেকে কর দিতে পারবেন। এছাড়াও মেলায় করদাতাদের সার্বক্ষণিক সেবা ও প্রাথমিক চিকিৎসাসেবা দিতে চালু থাকবে হেল্প ডেস্ক ও হেলথ সেন্টার।

সশস্ত্র বাহিনী, মুক্তিযোদ্ধা, নারী, প্রতিবন্ধি প্রবীণ নাগরিকদের জন্য আলাদা বুথ

কোনো নাগরিক যে কর অঞ্চলে আয়কর দাখিল করতেন, এবারের আয়কর মেলাতেও তারা নিজ নিজ কর অঞ্চলের বুথে আয়কার রিটার্ন দাখিল করবেন। আয়কর মেলায় বরাবরের মতো মুক্তিযোদ্ধা, নারী, প্রতিবন্ধী ও সিনিয়র করদাতা এবং সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের জন্য আলাদা বুথ থাকবে।

সর্বোচ্চ দীর্ঘ সময়ের করদাতাদের জন্য পুরস্কার

প্রতিবছরের মতো এবারও ৩৬টি ক্যাটাগরিতে ১৪১ জন করদাতাকে ট্যাক্স কার্ড এবং ৫২১ জন করদাতাকে সর্বোচ্চ ও দীর্ঘমেয়াদি করপ্রদানের ভিত্তিতে সম্মাননা সনদ দেবে জাতীয় রাজস্ব রোর্ড (এনবিআর)।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জিএস/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন