শুক্রবার ৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ২২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ৮ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধ’, রোহিঙ্গা ‘সন্ত্রাসী’র মৃত্যু

নভেম্বর ১৪, ২০১৯ | ১২:৩৮ অপরাহ্ণ

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

কক্সবাজার: কক্সবাজারের টেকনাফের শালবাগানে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাহমুদুল হক (৩৭) নামে এক রোহিঙ্গা ‘সন্ত্রাসী’র মৃত্যু হয়েছে। এ অভিযানে পুলিশের তিন সদস্য আহত হয়েছেন বলেও জানিয়েছে পুলিশ।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) ভোরের দিকে শালবাগান রোহিঙ্গা ক্যাম্প সংলগ্ন পাহাড়ে এ ঘটনা ঘটে। নিহত মাহমুদুল হাসান টেকনাফের নয়াপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের এইচ ব্লকের মৃত বাকের আহমদের ছেলে। তার বিরুদ্ধে ডাকাতি, মানবপাচারসহ একাধিক মামলা রয়েছে বলেও জানিয়েছেন টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ।

পুলিশ জানিয়েছে, ‘বন্দুকযুদ্ধে’র পর ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, তিনটি দেশীয় অস্ত্র, দুইটি ম্যাগাজিন, ১৮ রাউন্ড গুলি, ১৩ রাউন্ড তাজা কার্তুজ, ১৫ রাউন্ড কার্তুজের খালি খোসা উদ্ধার করা হয়।

টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ বলেন, আটক রোহিঙ্গা ডাকাত মাহমুদুলের কাছ থেকে পাওয়া খবরের ভিত্তিতে বুধবার দিবাগত রাত ১টার দিকে তাকে নিয়ে শালবন রোহিঙ্গা শিবির সংলগ্ন পাহাড়ে অস্ত্র উদ্ধার অভিযানে যায় পুলিশ। এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী ও মাহমুদুলের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি করে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালালে সন্ত্রাসীরা পিছু হটতে বাধ্য হয়। ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে একটি বিদেশি পিস্তল, বেশ কয়েক রাউন্ড গুলি এবং গুরুতর আহত অবস্থায় গুলিবিদ্ধ মাহমুদুল হাসানকে উদ্ধার করা হয়।

বিজ্ঞাপন

ওসি জানান, আহত মাহমুদুলকে চিকিৎসার জন্য প্রথমে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

মাহমুদুলের সহযেগীদের গুলিতে পুলিশ কনস্টেবল মিঠুন, শাহীন ও হাবিব আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন