শুক্রবার ৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ২২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ৮ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

প্রাথমিক সমাপনীতে শিক্ষার্থী ২৯ লাখ, কেন্দ্র ৭৪৫৮

নভেম্বর ১৪, ২০১৯ | ১:১৮ অপরাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: দুই দিন পর আগামী রোববার (১৭ নভেম্বর) থেকে সারাদেশে শুরু হচ্ছে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা। দুই পরীক্ষায় সারাদেশের ২৯ লাখ ৩ হাজার ৬৩৮ জন ক্ষুদে শিক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে। সারাদেশে ৭ হাজার ৪৫৮টি কেন্দ্রে এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। আর দেশের বাইরে পরীক্ষাকেন্দ্রের সংখ্যা আটটি।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) দুপুরে সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন।

প্রতিমন্ত্রী জানান, এবার প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় মোট ২৫ লাখ ৫৩ হাজার ২৬৭ জন শিক্ষার্থী অংশ নেবে। এর মধ্যে ছাত্রী ১৩ লাখ ৭১ হাজার ৯৬৭ জন, ছাত্র ১১ লাখ ৮১ হাজার ৩০০ জন। অন্যদিকে ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ৩ লাখ ৫০ হাজার ৩৭১। আর প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী মিলিয়ে ৩ হাজার ৫৮৩ জন বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিক্ষার্থী পরীক্ষাং অংশ নেবে।

প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন বলেন, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার বিদ্যালয়গুলো দ্রুত মেরামত করার পাশাপাশি পরীক্ষার্থীদেরও পরীক্ষার জন্য প্রস্তুত করতে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধেও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

প্রতিমন্ত্রী আরও জানান, এবার ১১তম বারের মতো অনুষ্ঠিত হচ্ছে পিইসি ও ইবতেদায়ি পরীক্ষা। সুষ্ঠু ও স্বচ্ছতার সঙ্গে যেন এই পরীক্ষা শেষ হয়, সেজন্য সব ধরনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। বিশেষ ব্যবস্থায় নিরাপদে প্রশ্নপত্র মুদ্রণ ও বিতরণের কাজ শেষ হয়েছে। প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে বিশেষ নিরাপত্তায় জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে এবং তা সংশ্লিষ্ট থানা ও ট্রেজারি হেফাজতে রাখা হয়েছে। পরীক্ষার দিন সর্বোচ্চ নিরাপত্তাবেষ্টিত রেখে সংশ্লিষ্ট প্রশ্নপত্র কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌঁছে দেওয়া হবে। দুর্গম এলাকার ১৪৮টি কেন্দ্রে বিশেষ ব্যবস্থায় প্রশ্ন পাঠানো হয়েছে।

ব্রিফিংয়ে জানানো হয়, প্রতিদিন সকাল সাড়ে ১০টায় পরীক্ষা শুরু হয়ে চলবে দুপুর ১টা পর্যন্ত। বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন পরীক্ষার্থীদের জন্য অতিরিক্ত ৩০ মিনিট সময় বরাদ্দ থাকছে। মোট ছয় বিষয়ের প্রতিটিতে ১০০ নম্বর করেরে ৬০০ নম্বরের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

প্রতিমন্ত্রী আরও জানান, প্রতিবছরের মতো এবারও প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে প্রতিটি জেলার পরীক্ষা কার্যক্রম পরিদর্শনের জন্য ভিজিল্যান্স টিম গঠন করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষা ও সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার জন্য জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে নজরদারি বাড়াতে বলা হয়েছে। এমন ঘটনা ঘটানোর চেষ্টা করা হলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার কথাথা জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী।

আগামী ২৪ নভেম্বর পর্যন্ত চলবে প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জেআর/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন