রবিবার ৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ২৪ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১০ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

ওমানের সঙ্গে পয়েন্ট নিয়ে ফেরা হলো না বাংলাদেশের

নভেম্বর ১৪, ২০১৯ | ১১:১২ অপরাহ্ণ

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট

প্রথমার্ধে লড়াই করা বাংলাদেশ যেন খেই হারালো দ্বিতীয়ার্ধে এসে। র‌্যাঙ্কিংয়ে ১০০ ধাপ উপরে থাকা ওমানকে প্রথম ৪৫ মিনিটে থামানো গেলেও দ্বিতীয়ার্ধে আটকানো গেল না। আশার বেলুন যেখানে ‍উড়ছিলো সেই বেলুনটা ফুটো করে পূর্ণ তিন পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছেড়েছে ওমান। হালি গোলের স্বাদ নিয়ে হতাশভঙ্গিতে মাঠ ছেড়েছে জামাল ভূঁইয়ারা।

বিজ্ঞাপন

আজ শুক্রবার (১৪ নভেম্বর) বাংলাদেশ সময় নয়টায় মাস্কটের সুলতান কাবুস স্পোর্টস কমপ্লেক্সে বিশ্বকাপ বাছাই ও এশিয়ান কাপের চতুর্থ ম্যাচে ওমানের বিপক্ষে ৪-১ ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ।

তৃতীয় ম্যাচে ভারতের যে স্কোয়াড রেখেছিলেন জেমি ডে, সেই দলের কোন পরিবর্তন না রেখে ওমানের সঙ্গে মাঠে নামিয়েছে জেমি ডে। কৌশলে কোনও পরিবর্তন আনেননি জেমি। রক্ষণে জমাট বেধে জামাল ভূঁইয়াকে দিয়ে পুরো জমাটবদ্ধ খেলানোর কৌশলে নেমেছে জেমির শিষ্যরা।

ম্যাচের শুরু থেকে অবশ্য দারুণভাবে লড়াই করেছে জেমির শিষ্যরা। প্রথম মিনিট থেকেই রক্ষণ চাঙা রেখে আক্রমণে যায় জামাল-সুফিলরা। প্রতিআক্রমণে ১১ মিনিটে জামাল ভূঁইয়ার দুরপাল্লার দুর্দান্ত শট রুখে দেন ওমানের গোলরক্ষক আল হাবসি। নাহলে এগিয়ে যেতে পারতো বাংলাদেশ। এর মাঝে ওমানও দারুণ কিছু সুযোগ তৈরি করলেও স্পষ্ট কোনও গোলের সুযোগ সফল করতে পারেনি। যার কারণে প্রথমার্ধে গোলশূন্য ড্র করে মাঠ ছাড়ে বাংলাদেশ।

বিজ্ঞাপন

দ্বিতীয়ার্ধে নেমেই এগিয়ে যায় ওমান। ৪৮ মিনিটে ডি বক্সের বাইরে থেকে বাঁকানো শটে বল জালে জড়ায় ওমানের মহসিন জৌহার। এরপরে যেন ফিরে আসার জন্য উঠে পড়ে লাগে বাংলাদেশ। ৫০ মিনিটেই দারুণ একটা সুযোগ তৈরি করে জীবনরা।

৬০ মিনিটে মাঝমাঠ থেকে রায়হানের ক্রসটা শূন্যে ভাসলে হেডে জালে জড়াতে পারেননি জীবন। দুর্বল হেড তালু বন্দী করতে ভুল করেননি ওমানের গোলরক্ষক হাবসি।

আক্রমণে-প্রতিআক্রমণে যখন খেলার ছন্দে ফিরতে শুরু করেছে বাংলাদেশ ঠিক তখনই আরেকটি আঘাত আসে লাল-সবুজ শিবিরে। ৬৮ মিনিটে সিক্স ইয়ার্ডের ভেতর থেকে গোলরক্ষক রানাকে বোকা বানিয়ে বল জালে জড়ান মান্ধার আল আলায়ি। ২-০ ব্যবধানে পিছিয়ে যায় বাংলাদেশ।

ম্যাচে ফিরতে মরিয়া টাইগার্সরা তিন মিনিটের মাথায় আরও দুটি কর্নার পেয়েও সুযোগ কাজে লাগাতে ব্যর্থ হয় জামাল ভূঁইয়ারা।

খেলায় ফেরার চেষ্টা অব্যাহত যখন রাখার সময় ৭৮ মিনিটে আরেকটি আঘাত পেয়ে যায় বাংলাদেশ। বদলি নেমে ডি বক্সের বাইরে থেকে নেয়া আরশাদ সাইদের গতির ভলি শট খুঁজে নেয় বাংলাদেশের জাল। ৩-০ ব্যবধানে আবার পিছিয়ে পড়ে লাল-সবুজরা।

এ গোলে জয়টাও মোটামুটি পাকাপোক্ত করে ফেলে ওমান। তবে ব্যবধান কমাতে মরিয়া বাংলাদেশ ফিরে আসে ৮০ মিনিটে। বিপলু আহমেদের গোলে ম্যাচে ফিরে বাংলাদেশ। কাঙ্খিতভাবেই গোলটি পায় টাইগার্সরা। সোহেল রানার হেড পাস থেকে ভলিতে দারুণভাবে গোলবারের ডানপ্রান্ত বরবার বল জালে জড়ান বিপলু। জাতীয় দলের জার্সিতে এটা তার দ্বিতীয় গোল।

এরপরেই যেন সময় নষ্ট করতে থাকে ওমান। নিজেদের মধ্যে বল পাস রেখে বল দখলের লড়াইটা জিতে নিয়ে সফরকারিদের উপর চাপ প্রয়োগ করতে থাকে স্বাগতিকরা। ম্যাচের অতিরিক্ত মিনিটে আমরানের গোলে জয়ের শেষ প্যারেকটি ঠুকে দেয় ওমান। ওই ব্যবধানেই মাঠ ছাড়ে দু’দল। প্রথমার্ধে আশার বাতি দ্বিতীয়ার্ধেই ধেয়ে আসে ঝড়ে। শূন্য পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ে জামাল ভূঁইয়া।

এ হারে পয়েন্ট টেবিলে অবশ্য বাংলাদেশের কোনও প্রভাব পড়েনি। এক পয়েন্ট নিয়ে তলানিতেই থাকতে হচ্ছে। তবে এই ম্যাচে সবচেয়ে অলৌকিক বিষয় হলো- পুরো ৯০ মিনিটে একটা বদলিও করায়নি জেমি ডে।

বাংলাদেশ দল:
গোলরক্ষক: আশরাফুল ইসলাম রানা, রক্ষণভাগ: রহমত মিয়া, ইয়াসিন খান, রিয়াদুল হাসান রাফি, রায়হান হাসান। মাঝমাঠ: জামাল ভূঁইয়া, বিপলু আহমেদ, সোহেল রানা, বিপলু আহমেদ ও আক্রমণভাগ: মোহাম্মদ ইব্রাহিম, সাদ উদ্দীন ও নবীব নেওয়াজ জীবন

ওমান দল
ফাইয়াজ রুশেদি, মোহাম্মদ মাসলামি, আল বুসাইদি, আমরান সাইদ, বাদুল আজিজ, আহমেদ মুবারাক, মুবারাক কানো, হারিব সাদি, মোহাম্মাদ ঘারফি, আল মান্ধার, মোহাম্মদ সালেহ, আব্দুল আজিজ মুকাবালি

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জেএইচ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন