শুক্রবার ৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ২২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ৮ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

‘ট্রেন দুর্ঘটনার পেছনে চক্রান্ত আছে কি না, তা তদন্ত হবে’

নভেম্বর ১৫, ২০১৯ | ৫:৫৪ পূর্বাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

দেশে সম্প্রতি ঘটে যাওয়া দুটি ট্রেন দুর্ঘটনার পেছনে কোনো চক্রান্ত আছে কি না, তা তদন্ত করে দেখা হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, এসব দুর্ঘটনার পেছনে কোন চক্রান্ত বা দূরভিসন্ধি আছে কি না, তা তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (১৪ নভেম্বর) রাতে একাদশ জাতীয় সংসদের পঞ্চম অধিবেশনের সমাপনী বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

ট্রেন দুর্ঘটনা নিয়ে বিরোধী দলের নেতার বক্তব্যের জবাব দিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘দুর্ঘটনা দুর্ঘটনাই। কুয়াশার কারণে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় রেল দুর্ঘটনায় কিছু মানুষ মারা গেছে। সঙ্গে সঙ্গে আহতদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছি। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের পাশে আমরা আছি। উল্লাপাড়ায় আরেকটি দুর্ঘটনা ঘটেছে। কিছু মানুষ আহত হয়েছে। এসব দুর্ঘটনার পেছনে কোন চক্রান্ত বা দূরভিসন্ধি আছে কি না, তা তদন্ত করে ব্যবস্থা নেব। কারণ দেশে একটা ঘটনা ঘটার পর পরই আরও ঘটনা ঘটে। এর পেছনেও কিছু আছে কি না, তা খুঁজে বের করতে হবে।’

বিএনপির আমলে রেল যোগাযোগ সম্পূর্ণ বন্ধ করে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছিল উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা রেল যোগাযোগ ব্যবস্থাকে আধুনিক করে দিচ্ছি। রেলে জনবল নিতে হবে, প্রশিক্ষণও দিতে হবে। তবে একটা দুটো ট্রেন দুর্ঘটনার কারণে যদি ট্রেন বন্ধ করতে হয়, তবে গাড়ি দুর্ঘটনার পর কী গাড়িও বন্ধ করে দিতে হবে? কোথায় কখন মেট্রোরেল দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে আমরা তৈরি করা বন্ধ করে দেবো? বিমানও ক্র্যাশ হয়, আবার হারিয়েও যায়। তবে কী বিমানও বন্ধ হয়ে যাবে। কেউ তো বিমানে চলাচল বন্ধ করেনি। সময় ও গতির সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে গেলে আধুনিক প্রযুক্তি নিয়ে অবশ্যই চলতে হবে।’

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) দুপুর ২টার দিকে সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় ঢাকা থেকে রংপুরগামী রংপুর এক্সপ্রেসের ৭টি বগি লাইনচ্যুত হয়। এসময় ইঞ্জিনসহ চারটি বগিতে আগুন ধরে যায়। এ ঘটনায় ঢাকার সঙ্গে রেলওয়ে পশ্চিমাঞ্চলের যোগাযোগ কয়েক ঘণ্টার জন্য বন্ধ হয়ে যায়।

এর আগে গত ১২ নভেম্বর ভোর পৌনে ৪টার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার মন্দবাগ রেলওয়ে স্টেশন সংলগ্ন এলাকায় চট্টগ্রাম থেকে ঢাকাগামী তূর্ণা নিশীথা এক্সপ্রেসের সঙ্গে সিলেট থেকে চট্টগ্রামগামী উদয়ন এক্সপ্রেসের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। ভয়াবহ এ দুর্ঘটনায় ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন শতাধিক।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এএইচএইচ/এসএমএন

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন