সোমবার ৯ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ২৫ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১১ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

টাইগারদের বিপক্ষে দ্বিতীয় দিনে রানের পাহাড় ভারতের

নভেম্বর ১৫, ২০১৯ | ৫:৩৮ অপরাহ্ণ

স্পোর্টস ডেস্ক

ইন্দোরে বাংলাদেশ বনাম ভারতের মধ্যকার সিরিজের প্রথম টেস্ট শুরু হয়েছে বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর)। প্রথম দিনে টস জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ। ১ম ইনিংসে সবক'টি উইকেট হারিয়ে সফরকারিরা সংগ্রহ করে ১৫০ রান। জবাবে ব্যাট করতে নেমে দ্বিতীয় দিন শেষে ভারত তোলে ৬ উইকেটের বিনিময়ে ৪৯৩ রান। প্রথম ইনিংসে ভারত এগিয়ে আছে ৩৪৩ রানে। দ্বিতীয় দিন শেষে অপরাজিত আছেন রবীন্দ্র জাদেজা (৬০) এবং উমেষ যাদব (২৫)।

বিজ্ঞাপন

ভারতের হয়ে নিজের ক্যারিয়ারের সেরা ইনিংস খেলেন ওপেনার মায়াঙ্ক আগারওয়াল। ব্যক্তিগত ২৪৩ রানে আবু জায়েদ রাহীর শিকার হয়ে ফিরে যান তিনি। বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ চারটি উইকেট তুলে নেন আবু জায়েদ রাহী। আর বাকি দুই উইকেটের মধ্যে পেসার এবাদত নেন একটি এবং মেহেদী হাসান মিরাজ নেন একটি উইকেট।

দিনের শুরুতে ক্যারিয়ারের ২৩তম অর্ধশতক তুলে নেন পূজারা। কিন্তু বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি এই ব্যাটসম্যান। রাহীর বলে স্লিপে দাঁড়ানো সাইফ হাসানের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফিরে যান পূজারা। ব্যক্তিগত ৫৪ রানে সাজঘরে ফেরেন তিনি। এরপর উইকেটে আসেন ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি। তবে উইকেটে থিতু হওয়ার আগেই আবু জায়েদ রাহীর বলে এলবি'র ফাঁদে পড়ে ফেরেন রানের খাতা শূন্য রেখেই।

কোহলিকে হারিয়ে কিছুটা হোঁচট খায় ভারত। তবে সেই হোঁচট কাটিয়ে দলের রানের চাকা সচল রাখেন মায়াঙ্ক আগারওয়াল। আর তাকে সঙ্গ দেন আজিঙ্কা রাহানে। আগারওয়াল তুলে নেন ক্যারিয়ারের তৃতীয় শতক। আর রাহানে তুলে নেন অর্ধশতক। এই দুইয়ে মিলে গড়েন ১৯০ রানের বিশাল জুটি। এরপর নিজের ১৮তম ওভারে রাহানেকে ফিরিয়ে জুটি ভাঙেন রাহী। ৮৬ রান করা রাহানে তাইজুল ইসলামের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফিরে যান। ভারতের পতন হওয়ার প্রথম চার ব্যাটসম্যানকেই ফেরান রাহী।

বিজ্ঞাপন

ক্যারিয়ারের ৮ম টেস্টে খেলতে নেমে বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসের ৯৯তম ওভারের ৫ম বলে মেহেদী হাসান মিরাজকে ওভার বাউন্ডারি হাঁকিয়ে পূর্ন করেন ডাবল সেঞ্চুরি। এরপর ব্যাট হাতে আরও ভয়ংকর হয়ে ওঠে মায়াঙ্ক। ঝড়ো গতিতেই এগিয়ে যাচ্ছিলেন ক্যারিয়ারের প্রথম আড়াইশত রানের ইনিংসের দিকেই। এর আগে অবশ্য জাদেজার সঙ্গে গড়েন ১২৩ রানের জুটি। ইনিংসের ১০৮তম ওভারের তৃতীয় বলে বাউন্ডারি লাইন থেকে মায়াঙ্কের ক্যাচ ধরেন রাহী। আর এতেই শেষ হয় মায়াঙ্কের ক্যারিয়ার সেরা ২৪৩ রানের ইনিংস।

তবে দিনের শেষ দিকে এসে এবাদত তুলে নেন এই টেস্টে নিজের প্রথম উইকেট। মায়াঙ্ক আউট হয়ে ফিরে গেলে উইকেটে আসেন ঋদ্ধিমান সাহা। আর ইনিংসের ১১১তম ওভারের পঞ্চম বলে ১২ রান করা সাহাকে ক্লিন বোল্ড করে বিদায় করেন এবাদত।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এনএ/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন