সোমবার ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ২ পৌষ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৮ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

‘লড়াই-সংগ্রামে শ্রমিক শ্রেণীর অধিকার আদায় করতে হবে’

নভেম্বর ১৫, ২০১৯ | ৭:৪৬ অপরাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম ব্যুরো: ওয়ার্কার্স পার্টির সাবেক সভাপতি ও বর্ষীয়ান শ্রমিক নেতা আবুল বাশারের নবম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে চট্টগ্রামে।

বিজ্ঞাপন

শুক্রবার (১৫ নভেম্বর) বিকেলে এ উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তারা বলেছেন, সভায় বক্তারা বলেন, অধিকার আদায়ের আন্দোলনে দল-মত নির্বিশেষে সকল শ্রমিককে এক কাতারে দাঁড় করাতে পেরেছিলেন আবুল বাশার। জীবনে কোনো প্রলোভন বা ভয়ের কাছে তিনি মাথা নত করেননি।

তিনি বিশ্বাস করতেন, শোষিত মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় কোন সংক্ষিপ্ত পথ নেই। বিশ্বায়ন ও মুক্তবাজার অর্থনীতির সর্বগ্রাসী এই যুগে লড়াই-সংগ্রাম করেই শ্রমিক শ্রেণীর অধিকার আদায় করতে হবে।

বিজ্ঞাপন

নগরীর আমিন জুট মিল কলোনী মাঠে এই আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন চট্টগ্রাম জেলার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জসীমউদ্দিন।

বক্তব্য রাখেন ওর্য়ার্কাস পার্টির চট্টগ্রাম জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক শরীফ চৌহান, জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন চট্টগ্রাম জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক দিদারুল আলম চৌধুরী, ওর্য়ার্কাস পার্টির চট্টগ্রাম জেলা কমিটির সদস্য মোখতার আহম্মদ, আমিন জুট মিল ওর্য়ার্কাস ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সামশুল আলম, যুব মৈত্রী চট্টগ্রাম জেলা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক খোকন মিয়া, পাটকল শ্রমিক নেতা আনোয়ার, আবুল কালাম ও রঞ্জু শেখ।

১৯৩৪ সালে লক্ষ্মীপুর জেলায় জন্ম নেওয়া আবুল বাশার ষাটের দশকে চট্টগ্রামের শ্রমিক আন্দোলনে জড়িয়ে পড়েন। ষাটের দশকে তিনি হয়ে ওঠেন পূর্ব পাকিস্তান মজদুর ফেডারেশনের গুরুত্বপূর্ণ নেতা।

শ্রমিক আন্দোলন করতে গিয়ে বহুবার জেলও খাটতে হয়েছে আবুল বাশারকে। একাত্তরে তিনি মুক্তিযুদ্ধে প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণ করেন। স্বাধীনতার পর ১৯৭৩ সালে জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশ গঠন করে শ্রমিক আন্দোলনকে বেগবান করেন।

১৯৮৫ সালে মজদুর পার্টি ও বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টি একীভূত হলে ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি নির্বাচিত হন বাশার। ২০১০ সালের ৭ নভেম্বর মৃত্যুর সময়ও তিনি ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরো সদস্য ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/আরডি/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন