শনিবার ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ৩০ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৬ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

অন্ধের মতো সমালোচনা না করার আহ্বান তথ্যমন্ত্রীর

নভেম্বর ১৫, ২০১৯ | ৯:৪১ অপরাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম ব্যুরো: অন্ধের মতো সমালোচনার রাজনীতি থেকে বিএনপি ও তার মিত্রদের বেরিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

বিজ্ঞাপন

শুক্রবার (১৫ নভেম্বর) সন্ধ্যায় চট্টগ্রামের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের বঙ্গবন্ধু কনফারেন্স হলে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় শিল্প ও বাণিজ্য উপ কমিটি আয়োজিত এক আলোচনা সভায় মন্ত্রী এ আহ্বান জানান। ‘শিল্প ও বাণিজ্য ক্ষেত্রে উন্নয়নের এক দশক’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছিলেন তথ্যমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘যদি বিএনপি ও তার মিত্রদের নেতিবাচক রাজনীতি না থাকতো তাহলে গত দশ বছরে বাংলাদেশ আরো বহুদুর এগিয়ে যেতে পারত। ইকোনোমিক লাইফ লাইন হিসেবে পরিচিত ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক যদি দিনের পর দিন অবরোধ করে না রাখত, মানুষের ওপর পেট্টোলবোমা নিক্ষেপ ও হামলা পরিচালনা করে জনগণকে জিম্মি করে রাখার যে রাজনীতি সেটা যদি না থাকতো তাহলে দেশের পরিবর্তন আরও অনেক বেশি ঘটতে পারত।

মন্ত্রী আরও বলেন, ‘সবকিছুতে না বলার যে নেতিবাচক রাজনীতি দেশের উন্নয়নের ক্ষেত্রে অন্যতম প্রতিবন্ধকতা। অবশ্যই যারা দায়িত্বে থাকবে তাদের সমালোচনা হবে। আমরা মনে করি, সমালোচনা পথচলাকে শাণিত করে। সমালোচনা ভুলকে শুদ্ধ করার ক্ষেত্রে সহায়তা করে। সে জন্য সমালোচনাকে সমাদৃত করার রাজনীতি আমরা করি। কিন্তু অন্ধের মতো সমালোচনা দেশ রাজনীতি ও সমাজ কোনোটির জন্য সহায়ক নয়। সমালোচনার পাশাপাশি ভালো কাজের প্রশংসাও থাকতে হবে। না হলে কেউ ভালো কাজ করার জন্য উৎসাহ পাবে না।’

বিজ্ঞাপন

আওয়ামী লীগ শাসনামলে দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতির তথ্য তুলে ধরে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘দশ বছর আগে আমাদের মাথাপিছু আয় ছিল ৬০০ ডলার। বর্তমানে মাথাপিছু আয় ২ হাজার ডলার ছুঁই ছুঁই। বাংলাদেশ আজ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে খাদ্যে উদ্বৃত্তের দেশে রূপান্তরিত হয়েছে। ক্ষুধাকে জয় করেছে বাংলাদেশ। দেশের ১৫ কোটি মানুষ মোবাইল ফোন ব্যবহার করে। সাড়ে ৩ কোটি মানুষ ফেসবুক ব্যবহার করে। চট্টগ্রামের রিকশাওয়ালা ভোলায় পরিবারের কাছে মোবাইলে টাকা পাঠায়। বিদেশে সন্তানের সঙ্গে ভিডিও কলে কথা বলে। ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন বাস্তব।’

‘দেশে আগে দুর্যোগ হলে বহির্বিশ্বের কাছে সাহায্য আহ্বান করা হত। এখন আমরা অন্যদের সাহায্য দিই। দেশের ৯৪ শতাংশ মানুষ বিদ্যুৎ পাচ্ছে। এখন গ্রামে এয়ার কন্ডিশনারের শো-রুম গড়ে উঠছে। মুজিববর্ষ শেষে শতভাগ মানুষ বিদ্যুৎ পাবেন। এখন কোলকাতার মানুষ বাংলাদেশে বেড়াতে আসে। টাকার মানও কাছাকাছি।’

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য এবং শিল্প ও বাণিজ্য উপ-কমিটির চেয়ারম্যান কাজী আকরাম উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা সমাজবিজ্ঞানী ড. অনুপম সেন, দলের কেন্দ্রীয় শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক মো. আব্দুচ ছাত্তার, চট্টগ্রামের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, চট্টগ্রাম চেম্বারের সাবেক সভাপতি সংসদ সদস্য এম এ লতিফ ও বর্তমান সভাপতি মাহবুবুল আলম।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/আরডি/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন