শুক্রবার ৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ২২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ৮ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

পাপনের মনটাই ভেঙে গেছে

নভেম্বর ১৬, ২০১৯ | ৯:৩৪ অপরাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

টি-টোয়েন্টি সিরিজে উড়ন্ত শুরু করেও শেষটা নির্মম বেদনায় শেষ হয়েছে বাংলাদেশের। প্রথম ম্যাচে ৭ উইকেটে জয়ী টাইগাররা, দ্বিতীয়টিতে হেরে গেছে ৮ উইকেটে আর তৃতীয় ও শেষটিতেও ওই হারের গল্প।

বিজ্ঞাপন

তবে এটা সত্যি যে শেষ টি-টোয়েন্টিতে মুশফিকদের ব্যাটিং আরেকটু সেন্সিবল হলে জয় টাইগার শিবিরেই ধরা দিত। কেননা নাইম শেখ (৮১) ও মোহাম্মদ মিঠুনের পাগলাটে ব্যাটে এক সময় (২৭) ভারতের দেওয়া ১৭৫ রানের বড় লক্ষ্যও অসম্ভব মনে হচ্ছিল না। যে ৩০ রানের ব্যবধানে ভারত ওই ম্যাচটি জিতে সিরিজ নিজেদের করে নিয়েছে সেখানে মুশফিক, মাহদুমউল্লাহ, সৌম্য ১০ করে করলেই দিক বদলে জয় ধরা দিত লাল সবুজ শিবিরেই। কিন্তু বাস্তবতা হলো, তারা সেটা পরেননি।

                                                        ‘বঙ্গবন্ধু বিপিএল’র লোগো উন্মোচিত

ম্যাচটিতে দলের সিনিয়র সদস্যদের এমন অর্বাচীন ব্যাটিংয়ে মন ভেঙে গেছে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের। মজার ব্যাপার হলো সেই ম্যাচ দিয়েই তিনি দেখে ফেলেছেন টেস্টের ভাগ্য। ফলে ইন্দোর টেস্টে মুশফিক, মুমিনুলদের ইনিংস ও ১৩০ রানের হার তাকে নতুন করে আর কষ্ট দিচ্ছে না।

বিজ্ঞাপন

শনিবার (১৬ নভেম্বর) রাজধানীর স্থানীয় একটি হোটেলে ‘বঙ্গবন্ধু বিপিএল’র লোগো উন্মোচন অনুষ্ঠান শেষে তিনি এই প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন।

পাপন বলেন, ‘টেস্টের আগেই মন ভেঙ্গে গেছে। টেস্ট তো পরে। অনেক আশা ছিল টি-টোয়েন্টিতে আমরা জিতব। তৃতীয় ম্যাচটা নিশ্চিত জেতা ম্যাচ। এই হারটা এখন আমি নিজেই হজম করতে পারিনি। আমি বাসা থেকেই বের হই না। আপনারা হয়তো খেয়াল করেছেন, আমি কোথাও যেতেই চাই না। আমি এখনো নিজে এটা মেনেই নিতে পারছি না এই ম্যাচটাও হারব। নাইম, মিঠুন যদি এই রান করতে পারে, আমাদের টি-টোয়েন্টির বাকি যারা প্লেয়ার; যাদের এতো বছর ধরে পরিচর্যা করছি। যাদের পেছনে সবচেয়ে বেশি সময় ব্যয় করছি... শুধু আপনি হিসেব করে দেখেন সৌম্য, লিটন, মুশফিক, রিয়াদ; এদের চেয়ে অভিজ্ঞ ক্রিকেটার তো আমাদের আর নেই। এরা যদি ১০ করে ৪০ রানও করত আমরা সেদিন ম্যাচ জিতে জেতাম।‘

‘কারণ বাকি যে সাত রান থাকে ওটা বাকিরা করে নিত। ফাইনালে গিয়ে যদি এই অভিজ্ঞদের কাছ থেকে পারফরম্যান্স না পাই তাহলে এটা আমাদের দুর্ভাগ্য। এরা তো কেউ খারাপ খেলোয়াড় না। হয় না কেন জানি না, কি জানি ভারতের সঙ্গে এলে এটা বেশি হয়। এবার একদম মনে প্রানে বিশ্বাস ছিল এবার আমরা জিতবই। সেটা হয়নি এবং সেই শোকই এখনো ভুলতে পারিনি।‘

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম ম্যাচে পরাশক্তি ভারতের বিপক্ষে ইনিংস ও ১৩০ হারে ব্যথাতুর পাপন বলেন, ‘টেস্ট নিয়ে যদি আমাকে বলেন, আমি যেটা ভেবেছিলাম তার চেয়ে খারাপ হয়েছে। এতে কোনো সন্দেহ নেই। কারণ একটা জিনিসে সন্দেহ নেই ভারতের যে টেস্ট দল এটা আমাদের তুলনায় অনেক বেশি শক্তিশালী। অনেকেই অনেক রকম কথা বলে, ঘরোয়া স্ট্রাকচার, প্লেইং কন্ডিশন, পিচ। আমি অনেককেই দেখালাম। আপনারা দেখেছেন কিনা জানি না। আমার কাছে সবগুলো পিচের ছবি আছে।‘

‘আমাদের এনসিএল যে পিচে হচ্ছে সবগুলার ছবি আমার কাছে আছে। এখন তো আমি নিজে দেখি। ৬ ইঞ্চি ঘাস দিয়ে শুরু করেছি এখন ৪ ইঞ্চিতে এসেছে। রাজশাহী বলেন, খুলনা বলেন, বগুড়া বলেন সব জায়গায় আমরা স্পোর্টিং উইকেট বানিয়েছি। এটা এক নম্বর বিষয়। একটা মৌলিক জিনিস ছিল। দ্বিতীয়ত্ব আরেকটা জিনিস কি বলছে? ঘরোয়া স্ট্রাকচার? আর কি বলে? আর কি আছে বলেন? কেন পারি না আমরা? আপনারা তো বেশি লেখেন, আপনারাই বলেন কেন পারি না আমরা? আর কি বাকি আছে?’ যোগ করেন বিসিবি সভাপতি।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এমআরএফ/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন