শুক্রবার ৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ২২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ৮ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

ডিজিটাল মার্কেটিংয়ে আলাদা ক্রেডিট লাইন চায় বেসিস

নভেম্বর ১৭, ২০১৯ | ১১:১৫ অপরাহ্ণ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: আন্তর্জাতিক ক্রেডিট কার্ড ও প্রিপেইড কার্ডের মাধ্যমে অনলাইনে পণ্য কেনাবেচা ও বিজ্ঞাপনের অর্থ পরিশোধে দেশের কিছু কিছু ব্যাংক নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। এ উদ্যোগকে ডিজিটাল মার্কেটিং শিল্পের বিকাশ বাধাগ্রস্ত করবে বলে মনে করছে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস)। এ অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য আলাদা ক্রেডিট লাইন চায় সংগঠনটি।

বিজ্ঞাপন

রোববার (১৭ নভেম্বর) বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীরের নেতৃত্বে বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর আহমেদ জামালের সঙ্গে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে বেসিসের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন সহ-সভাপতি (প্রশাসন) শোয়েব আহমেদ মাসুদ এবং বেসিস ডিজিটাল কর্মাস স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান সৈয়দ কামাল।

বৈঠকের বিষয়ে গণমাধ্যমে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বেসিস বলছে, সাম্প্রতিককালে বেশ কিছু ব্যাংক ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে ডিজিটাল মাধ্যমের বিজ্ঞাপন বা পণ্য কেনাবেচার অর্থ প্রদানের সুবিধা বন্ধ করে দিয়েছে।
আন্তর্জাতিক ক্রেডিট ও প্রি-পেইড কার্ডে ট্রাভেল কোটায় বরাদ্দ ডলার থেকে ডিজিটাল মার্কেটিং খাতে মূল্য পরিশোধের সুযোগ থাকছে না। ফলে ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানগুলো ব্যবসায়িক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে। দেশে ডিজিটাল মার্কেটিং এর মতো একটি সম্ভাবনাময় খাতের অগ্রযাত্রাকে বাধাগ্রস্ত করার সম্ভাবনা রয়েছে।

একইসঙ্গে এই পরিস্থিতি সমস্ত ছোটো উদ্যোক্তাদের জীবিকার দায়ে ‘হুন্ডি’ এর মতো অবৈধ প্রক্রিয়া ও বিভিন্ন অসদুপায় অবলম্বন করে আর্থিক লেনদেন পরিচালনায় বাধ্য করতে পারে।

বিজ্ঞাপন

বেসিস কয়েকটি প্রস্তাব দিয়েছে। বেসিস বলছে, ডিজিটাল মার্কেটিং কাজে ব্যবহারের জন্য বিকল্প সমাধান হিসেবে সরকারি বা বেসরকারি ব্যাংকের মাধ্যমে নেটওয়ার্ক প্রোভাইডার, যেমন মাস্টার কার্ড/ভিসা সম্বলিত বিশেষ নিরবচ্ছিন্ন কার্ড প্রদান করা যেতে পারে যা শুধুমাত্র অনুমোদিত মিডিয়া চ্যানেলগুলোতে পেমেন্ট পাঠানোর জন্য ব্যবহার করা যাবে।

বেসিসের অনুমোদনক্রমে যেকোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট উপস্থাপন করে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে এই বিশেষ কার্ড গ্রহণ করতে পারবেন যা ডিজিটাল মার্কেটিং কাজে বছরে ২৫ হাজার ডলার পর্যন্ত মূল্য পরিশোধের জন্য ব্যবহার করা যাবে।

বেসিস আরও বলছে, যতদিন একটি বিকল্প ব্যবস্থার প্রচলন না হচ্ছে, ততদিন পর্যন্ত ক্রেডিট ও প্রি-পেইড কার্ড দ্বারা ট্রাভেল কোটায় ডিজিটাল মার্কেটিং খাতে মূল্য পরিশোধের সুবিধাটি সক্রিয় রাখা হোক। প্রচলিত নিয়মে ব্যাংক থেকে কার্ডের নির্দিষ্ট মার্চেন্ট কোড-কে ব্লক করে দেওয়া সম্ভব যা গ্যাম্বলিং, ফরেক্স ট্রেডিং-এর লেনদেন বন্ধ করতে সাহায্য করবে। এ জন্যে সব আন্তর্জাতিক ক্রেডিট-ডেবিট কার্ড ট্রান্সেকশন বন্ধ করার প্রয়োজন নেই।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/ইএইচটি/এনএইচ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন