রবিবার ৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ২৪ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১০ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

ঠাকুরগাঁও কারা কর্তৃপক্ষের নাম ভাঙিয়ে প্রতারণা

নভেম্বর ১৮, ২০১৯ | ১১:০৯ অপরাহ্ণ

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

ঠাকুরগাঁও: ঠাকুরগাঁও জেলা কারা কর্তৃপক্ষের নাম ভাঙিয়ে প্রতারণা শুরু করেছে একটি চক্র। পুলিশ জানিয়েছে, শিগগিরই এই প্রতারক চক্রের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (১৮ নভেম্বর) জেলা পুলিশ সুপার কর্যালয়ে এ সংক্রান্ত অভিযোগ করেন প্রতারণার শিকার মো. আব্দুল্লাহ হক। গতকাল প্রতারক চক্র তার কাছ থেকে ৪০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়।

আব্দুল্লাহ হকের বাড়ি উপজেলার চিলারং ইউনিয়নের ভেলাজান গ্রামে। তিনি বলেন, আমার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা ঠাকুরগাঁও জেলা কারাগারে বন্দি রয়েছে। চিলারং ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য রমজান আলী আমাকে ফোন করে জানান— কারাগারে আয়েশা হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েছে। তার চিকিৎসায় ৫০ হাজার টাকা প্রয়োজন। একটি বিকাশ নম্বরে প্রথমে ৩০ হাজার এবং পরে আরও ১০ হাজার টাকা পাঠাই আমি। এরপর কল করে মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাই। তখন পুলিশ সুপারের সঙ্গে যোগাযোগ করি।

আয়েশা সিদ্দিকা ভেলাজান আনছারিয়া আলিম মাদরাসার সহকারী শিক্ষক। জেলা কারাগার সূত্র জানায়, তিনি সদর উপজেলার সালন্দর কামিল মাদরাসায় জেসিডি পরীক্ষার কেন্দ্রে দায়িত্ব পালন করছিলেন। শনিবার পরীক্ষা চলাকালে তার ভ্যানেটি ব্যাগে নকল পাওয়া যায়। এই অপরাধে ভ্রাম্যমাণ আদালত তাকে ১২ দিনের কারাদণ্ড দেন।

বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইউপি সদস্য রমজান আলী সারাবাংলাকে বলেন, ঠাকুরগাঁও থেকে পুলিশ কর্মকর্তা পরিচয়ে কাউছার নামে এক ব্যক্তি আমাকে ফোন করেন। তিনি জানান, আয়েশা কারাগারে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। তার চিকিৎসার জন্য টাকার প্রয়োজন। এ কথা আমি আব্দুল্লাহকে জানাই এবং জেল গেটে যেতে বলি। এর বেশি কিছু আমি জানি না।

ঠাকুরগাঁও জেলা কারাগারের সুপার সাখাওয়াত হোসেন বলেন, এ ধরনের ঘটনা এবারই প্রথম না। এর আগেও প্রতারক চক্র এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে।

এ বিষয়ে ঠাকুরগাঁওয়ের জেলা পুলিশ সুপার মোহা. মনিরুজ্জামান বলেন, একটি প্রতারক চক্র এ ঘটনা ঘটিয়েছে। পুলিশ তাদের আটক করতে তৎপর রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এটি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন