শনিবার ৭ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ২৩ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ৯ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

সেশনজট নিরসনসহ ৫ দফা দাবিতে কুবিতে বিক্ষোভ

নভেম্বর ১৯, ২০১৯ | ৬:৩০ পূর্বাহ্ণ

কুবি করেসপন্ডেন্ট

কুবি: এবার সেশনজট নিরসনসহ ৫ দফা দাবিতে বিক্ষোভ করেছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (১৮ নভেম্বর) সকাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে বিভাগের শিক্ষার্থীরা এ বিক্ষোভ ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করে। পরবর্তী সময়ে উপাচার্য বিভাগটির শিক্ষকরা ও আন্দোলনকারীদের একটি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে আলোচনায় বসে শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নিয়ে সেশনজট কমানোর আশ্বাস দিলে অবস্থান কর্মসূচি প্রত্যাহার করে শিক্ষার্থীরা।

জানা যায়, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের ছয়টি ব্যাচ চলমান রয়েছে। বিভাগের প্রায় সবগুলো ব্যাচেই ৬ মাস থেকে দেড় বছরের সেশনজট রয়েছে। বিভাগের শিক্ষার্থীরা বারবার সেশনজট কমিয়ে আনতে বিভাগের শিক্ষকদের কাছে আবেদন করলেও তার প্রতিফলন ঘটেনি। এরই পরিপ্রেক্ষিতে বিভাগের শিক্ষার্থীরা ক্ষুব্ধ হয়ে সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে বিক্ষোভ ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করে। এতে তারা সেশনজট নিরসনে পদক্ষেপ নেওয়াসহ ৫ দফা দাবি উত্থাপন করে।

দাবিগুলো হলো সেশনজট নিরসনের লক্ষ্যে নির্দিষ্ট সময়ে ৯ম থেকে ১২ তম ব্যাচের পরীক্ষা সম্পন্ন, ব্যাচ ভিত্তিক শিফট করে ক্লাস রুটিন প্রণয়ন, নির্দিষ্ট অ্যাকাডেমিক ক্যালেন্ডার প্রণয়ন, ২৫ নভেম্বরের মধ্যে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় আর্টস অ্যান্ড হেরিটেজ সোসাইটির নির্বাচন সম্পন্ন এবং প্রতি জোড় সেমিস্টার পরীক্ষা পরবর্তী এক মাসের মধ্যে মাঠকর্ম ও ভাইভা শেষ করা।

বিজ্ঞাপন

বিক্ষোভ চলাকালীন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ও শিক্ষকরা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের সঙ্গে বিভিন্ন ব্যাচের প্রতিনিধিদের নিয়ে আলোচনায় বসেন। আলোচনা শেষে বিশ্ববিদ্যালেয়র উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো মেনে নিয়ে সেশনজট কমানোর আশ্বাস দিলে দুপুরে অবস্থান কর্মসূচি প্রত্যাহার করে শিক্ষার্থীরা।

প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের বিভাগীয় প্রধান মো. সাদেকুজ্জামান বলেন, ‘উপাচার্যের আশ্বাসে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন প্রত্যাহার করেছে। পরবর্তীতে বিভাগের শিক্ষকদের সঙ্গে আলোচনা করে আমরা খুব শীঘ্রই বিভিন্ন ব্যাচের পরীক্ষার তারিখ নির্ধারণ করব। সোসাইটির নির্বাচনসহ অন্যান্য দাবিগুলোও অতিদ্রুত সমাধান করব।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহের বলেন, ‘প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের সেশনজট নিরসনের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন থেকে যে পদক্ষেপ নিতে হবে আমরা ওই পদক্ষেপগুলো নেব।’

বিজ্ঞাপন

সারবাংলা/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন