রবিবার ৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ২৪ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১০ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

‘আগামী বছর থেকে টিসিবির মাধ্যমে চামড়া কিনবে সরকার’

নভেম্বর ১৯, ২০১৯ | ৯:২২ অপরাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ঈদুল আজহার সময় পশুর চামড়া নিয়ে সিন্ডিকেট ঠেকাতে আগামী বছর থেকে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) মাধ্যমে সরকার সরাসরি পশুর চামড়া কিনবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) বিকেলে সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য দেন তিনি।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, সরকার সবসময়ই চামড়ার একটি দাম নির্ধারণ করে দেয়। এবারও ব্যবসায়ীরা বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে এসে চামড়ার দাম ঠিক করেছিলেন। কোরবানির একদিনেই মূল চামড়াটা পাওয়া যায়। দুই-তিন দিনের মধ্যে সেটা কিনতে হয়। কিন্তু ব্যবসায়ীরা কথা দিয়ে যাওয়ার পরও এবার সে দামে কেনেননি।

টিপু মুনশি বলেন, গড়ে যেখানে ৮০০ থেকে ১০০০ টাকা দরে চামড়া কেনার কথা ব্যবসায়ীরা বলেছিলেন, সেখানে আগের বছর আড়াই থেকে তিনশ টাকায় চামড়া কিনেছিলেন তারা। এ বছর আরও কম দামে চামড়া কিনেছেন। আমাকে তাদের কথার ওপর ভরসা করতে হয়েছিল।

বিজ্ঞাপন

তিনি আরও বলেন, এসবের পরিপ্রেক্ষিতে সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, পরের বছর সরকার নিজেই চামড়া কিনবে। টিসিবির মাধ্যমে সব জেলায় নিজেরা চামড়া কিনবে, যেন ব্যবসায়ীদের কাছে কাউকে ঠকতে না হয়।

গত কয়েকবছর ধরে সরকার প্রতিবছরই ঈদুল আজহার সময় চামড়ার দাম নির্ধারণ করে দেয়। সরকারের বেঁধে দেওয়া দাম অনুযায়ী, ঢাকায় লবণ দেওয়ার পর কোরবানির গরুর চামড়া ২০ থেকে ৩৫ বর্গফুট ৯০০ থেকে ১ হাজার ৭৫০ টাকায় কেনার কথা ট্যানারি মালিকদের। কিন্তু এবার ফড়িয়া বা মৌসুমি চামড়া ব্যবসায়ীদের দেখা মেলেনি। কোথাও কোথাও মৌসুমি ব্যবসায়ীরা ৩০০ থেকে ৫০০ টাকায় চামড়া কিনেছেন। রাজধানীর বাইরে অনেক এলাকায় ১০০ টাকাতেও চামড়া বিক্রি হয়েছে। কেউ কেউ চামড়া মাটিতেই পুঁতে ফেলেছিলেন।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জেআর/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন