রবিবার ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ১ পৌষ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৭ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

চিকিৎসকরা আতঙ্কে থাকলে রোগীরা ভালো চিকিৎসা পাবে না: এফডিএসআর

নভেম্বর ৩০, ২০১৯ | ৯:২১ অপরাহ্ণ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: চিকিৎসকরা আতঙ্কে থাকলে রোগীরা ভালো চিকিৎসা পাবে না, তাই চিকিৎসকদের নিরাপত্তায় অবিলম্বে চিকিৎসক সুরক্ষা আইনের দাবি জানিয়েছেন ফাউন্ডেশন ফর ডক্টরস সেফটি অ্যান্ড রাইটস (এফডিএসআর)-এর ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. আবু রায়হান।

বিজ্ঞাপন

শনিবার (৩০ নভেম্বর) রাজধানীর শাহবাগে আয়োজিত এক বিক্ষোভ সমাবেশে এই কথা বলেন তিনি।

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কর্তব্যরত ইন্টার্ন ও চিকিৎসকদের ওপর সন্ত্রাসী হামলাকারীদের শিগগিরই গ্রেফতার এবং সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে এই বিক্ষোভ সমাবেশ আয়োজন করা হয়।

অধ্যাপক ডা. আবু রায়হান বলেন, চিকিৎসকদের উপরে হামলা হচ্ছে বিভিন্ন স্থানে। রাষ্ট্র শুধু বদলি করেই আমাদের চোখে ধুলো দেওয়ার চেষ্টা করতেছে। কিন্তু শুধু বদলি করেই শাস্তি হয় না। আমরা আমাদের চিকিৎসক সমাজের সুরক্ষার জন্য আইন চাই। রংপুরে চিকিৎসকদের উপরে হামলার ঘটনায় যদি দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি না হয় তবে কঠোরতর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

বিজ্ঞাপন

এফডিএসআর’র মহাসচিব ডা. শেখ আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ২৬ নভেম্বর সকালে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ডেন্টাল ইউনিটের সন্ত্রাসী নার্স আশরাফুল ইসলাম লিমন ও তার সহযোগীরা দুইজন কর্তব্যরত নারী ইন্টার্ন চিকিৎসককে কর্তব্যরত অবস্থায় হামলা ও মারধর করে শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করে।  তাদের হামলার হাত থেকে রক্ষা করতে গিয়ে দুইজন সহকারী অধ্যাপকও আক্রান্ত হন। এ ঘটনার প্রেক্ষিতে কলেজ ও হাসপাতাল প্রশাসন সন্ত্রাসী নার্সকে অন্যত্র বদলি করে ঘটনা এখানেই ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেন।

তিনি আরও বলেন, এফডিএসআর এ বিষয়ে কোন ছাড় দেবে না। আমরা অনতিবিলম্বে এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে বিভাগীয় ও প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করে দোষী নার্স লিমন, মানিক ও তাদের সহযোগীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই যাতে ভবিষ্যতে কেউ রাজনৈতিক বা অন্য কোন পরিচয়ে হাসপাতালের মত স্পর্শকাতর সরকারী প্রতিষ্ঠানে অস্থিতিশীল ও নৈরাজ্যকর কোন পরিস্থিতি সৃষ্টি করে হীন ব্যক্তিস্বার্থ চরিতার্থ করার সুযোগ না পায়।

বিক্ষোভ সমাবেশে উপস্থিত মাগুরা ডায়াবেটিস হসপিটালের অধ্যাপক ডা. মাসুদুল হক বলেন, ডাক্তাররা নিরাপদ না হলে, দেশের মানুষের স্বাস্থ্য ঠিক থাকবে না। ডাক্তাররা আতঙ্কে থাকলে ভাল চিকিৎসা দিতে পারবে না। আমি প্রধানমন্ত্রীর কাছে এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

এফডিএসআর এর আইন বিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক ডা. নোমান চৌধুরী বলেন, সরকারের সাংবিধানিক দণ্ডবিধির ধারা অনুযায়ী এটি সরকার একটি ফৌজদারী মামলা করার কথা থাকলেও আজ সবাই নির্লিপ্ত। এই ঘটনায় একটা এফআইআর করা জরুরি।

বিক্ষোভ সমাবশে অন্যান্য বক্তারা কর্তব্যরত নারী চিকিৎসকের উপর হামলাকারী নার্স আশরাফুল ইসলাম লিমন ও মানিকসহ সংশ্লিষ্ট সকলের দৃষ্টান্তমূলক কঠোর শাস্তি দাবী করেন।

সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন এফডিএসআর’র কার্যনির্বাহী সদস্য মিটফোর্ড হাসপাতালের মানসিক স্বাস্থ্য বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মো. রাশিদুল হক, বারডেম এর আইসিইউ এর নারী চিকিৎসক ডা. দিবা মাহফুজা খানম, ইউএনএফপিও এর আঞ্চলিক প্রতিনিধি ও এফডিএসআর এর মডারেটর ডা.সামরিন হৃদি, ডা. জাহিদুর রহমান, ডা. লপ্তি, বাংলাদেশ ডেন্টাল সোসাইটির সাংগঠনিক সম্পাদক ডা.আসাদুজ্জামান সারোয়ার,  সিলেট বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক ডা.ইমতিয়াজ উদ্দিন, বারডেম এর ডা.সাফি পারভেজ ডা. তান্না, ডা. রাজীব, ডা. অরুপ, ডা. রবিন, ডা. নীতিশ, ডা. আরু, ডা. রাজ।

প্রসঙ্গত, ২৬ নভেম্বর রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে হাসপাতালের ডেন্টাল ইউনিটের ইন্টার্ন চিকিৎসকের উপর হামলা চালিয়েছে হাসপাতালে কর্মরত স্টাফ নার্সরা। এ সময় উভয়পক্ষের কথা কাটাকাটি ও ধাক্কাধাক্কিতে ৩ জন আহত হয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসবি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন