রবিবার ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ১ পৌষ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৭ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

নৌবাহিনীতে যুক্ত হচ্ছে নতুন ৫ যুদ্ধজাহাজ

ডিসেম্বর ২, ২০১৯ | ৯:০৫ অপরাহ্ণ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বাংলাদেশ নৌবাহিনীর জন্য নির্মিয়মান পাঁচটি প্যাট্রোল ক্র্যাফট বা যুদ্ধজাহাজের কিল লেয়িং (নির্মাণ কাজের সূচনা) অনুষ্ঠান খুলনা শিপইয়ার্ডে অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্মাণ শেষে যুদ্ধজাহাজগুলো বাংলাদেশ নৌবাহিনীর কাছে হস্তান্তর করা হবে।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (২ ডিসেম্বর) প্রধান অতিথি হিসেবে নৌবাহিনী প্রধান অ্যাডমিরাল আওরঙ্গজেব চৌধুরী কিল লেয়িং অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, প্যাট্রোল পাঁচটির প্রতিটির দৈর্ঘ্য ৫১ দশমিক ৬ মিটার, প্রস্থ ৭ দশমিক ৫০ মিটার। ঘণ্টায় ২১ নটিক্যাল মাইল পর্যন্ত গতিতে চলতে সক্ষম হবে যুদ্ধজাহাজগুলো।

বিজ্ঞাপন

অনুষ্ঠানে নৌবাহিনীর কর্মকর্তারা বলেন, নৌবহরে যুক্ত হওয়ার পর এই যুদ্ধজাহাজগুলো উপকূলীয় এলাকায় টহল, চোরাচালান বিরোধী অভিযান, দুর্ঘটনা পরবর্তী উদ্ধার ও অনুসন্ধান কার্যক্রম, মৎস্য সম্পদ সংরক্ষণ, প্রাকৃতিক দুর্যোগ পরবর্তী উদ্ধার ও ত্রাণ তৎপরতা পরিচালনা, পরিবেশ দূষণ প্রতিরোধসহ বাংলাদেশ নৌবাহিনীর সার্বিক অপারেশনাল সক্ষমতা বাড়িয়ে তুলবে। পাশাপাশি সরকারের অগ্রাধিকারপ্রাপ্ত নীতি ব্লু ইকোনমি বাস্তবায়নে সমুদ্রের মূল্যবান সম্পদ আহরণের মাধ্যমে দেশের অর্থনৈতিক কল্যাণে কার্যকর ভূমিকা পালন করবে।

বাংলাদেশে জাহাজ নির্মাণ শিল্পের পথিকৃৎ হিসেবে খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেড যাত্রা শুরু করে ৬২ বছর আগে। নানা প্রতিকূলতা পেরিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুদূরপ্রসারী সিদ্ধান্তে ১৯৯৯ সালে প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশ নৌবাহিনীর কাছে হস্তান্তর করা হয়। রুগ্ন প্রতিষ্ঠানটি নৌবাহিনীর দক্ষ ব্যবস্থাপনা ও কর্মীদের কুশলতায় বর্তমানে একটি লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে।

এই ইয়ার্ডে যুদ্ধজাহাজসহ সাকুল্যে ৭৩১টি জাহাজ নির্মাণ ও ২৩৩১টি জাহাজ মেরামতের কাজ সুষ্ঠুভাবে শেষ হয়েছে। ইয়ার্ডটি এরই মধ্যে দেশীয় প্রযুক্তিতে পাঁচটি প্যাট্রোল ক্র্যাফ্ট এবং দুইটি লার্জ প্যাট্রোল ক্র্যাফ্ট নির্মাণ করে বাংলাদেশ নৌবাহিনীকে সফলভাবে হস্তান্তর করেছে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/টিএস/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন