বিজ্ঞাপন

যৌতুকের মামলায় নড়াইলের চিকিৎসা কর্মকর্তা কারাগারে

December 5, 2019 | 4:56 pm

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট:

জয়পুরহাট: স্ত্রীর দায়ের করা যৌতুক মামলায় নড়াইল সদর হাসপাতালের চিকিৎসা কর্মকর্তাকে কারাগারে পাঠানো নির্দেশ দিয়েছেন জয়পুরহাটের আদালত।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) দুপুরে জয়পুরহাটের অতিরিক্ত মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালতের বিচারক মোহাম্মদ ইকবাল বাহার এ আদেশ দেন।

মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, ২০১৭ সালে জয়পুরহাট শহরের সবুজ নগর এলাকার ডা. শান্তি প্রসাদ রায়ের মেয়ে ডা. চৈতী রায়ের সঙ্গে রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আড়ানী মাস্টারপাড়া এলাকার গোপাল শর্মার ছেলে ডা. বিভাষ কুমার শর্মার বিয়ে হয়।  ডা. চৈতী রায় জয়পুরহাট সিভিল সার্জন কার্যালয়ে সিনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা কর্মকর্তা ও ডা. বিভাষ কুমার শর্মা নড়াইল সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসা কর্মকর্তা হিসাবে কর্মরত রয়েছেন।

বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই বিভাস শর্মা চৈতির পরিবারের কাছে ১০ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করলে চৈতীর পরিবার তা দিতে অপারগতা জানায়। যৌতুকের টাকা না পাওয়ায় বিভাস শর্মা তার স্ত্রী চৈতীকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করে বাড়ি থেকে বের করে দেন। এমন অভিযোগে গত ১২ সেপ্টেম্বর ডা. চৈতী রায় বাদী হয়ে ডা. বিভাষ শর্মার বিরুদ্ধে জয়পুরহাট মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালতে মামলা দায়ের করেন।

বিজ্ঞাপন

রাষ্ট্রপক্ষের বিশেষ আইনজীবী ফিরোজা চৌধুরী বলেন, বৃহস্পতিবার আদালতে জামিন আবেদন করা হলে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে বিভাষকে জেল হাজতে পাঠানো নির্দেশ দেন।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএমএন

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন