বুধবার ২২ জানুয়ারি, ২০২০ ইং

হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ ও কোয়ার্টজ লিমিটেডের মধ্যে চুক্তি সই

ডিসেম্বর ৬, ২০১৯ | ২:১২ পূর্বাহ্ণ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: গাজীপুরের কালিয়াকৈরস্থ বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটিতে উচ্চ প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করার জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছে কোয়ার্টজ ম্যানুফেকচ্যারিং লিমিটেড। বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে আইসিটি টাওয়ারে হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের সভাকক্ষে এই চুক্তি সই হয়।

বিজ্ঞাপন

থ্রিএস গ্রুপ অব কোম্পানিজ এর অঙ্গ প্রতিষ্ঠান কোয়ার্টজ ম্যানুফেকচ্যারিং লিমিটেড বাংলাদেশ-তাইওয়ান যৌথ উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত। এই চুক্তির আওতায় বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটির পাঁচ নম্বর ব্লকে ডেভেলপার প্রতিষ্ঠান সামিট টেকনোপলিশ লিমিটেড নির্মিত ফ্যাক্টরি ভবনের দ্বিতীয় তলায় কাজ করবে প্রতিষ্ঠানটি।

বঙ্গবন্ধু হাইটটেক সিটি তে কোয়ার্টজ ম্যানুফেকচ্যারিং লিমিটেড আইপি ফোন, বায়োমেট্রিক ডিভাইস, সিকুরিটি সিস্টেম হার্ডওয়্যার, সোলার প্যানেল এবং আইপি পিবিএক্স এর এসেম্বলিং ও ম্যানুফেকচারিং শিল্প স্থাপন করবে। প্রতিষ্ঠানটি দীর্ঘদিন ধরে সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থার সঙ্গে সিকিউরিটি সিস্টেম সার্ভাইলেন্স ও নেটওয়ার্কিং নিয়ে কাজ করছে। প্রতিষ্ঠানটি প্রাথমিকভাবে ৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করবে যা পরবর্তী সময়ে ১২ মিলিয়ন ডলারে উন্নীত হবে এবং প্রথম পর্যায়ে ৩০০ জনের কর্মসংস্থান হবে বলে সামিট টেকনোপলিশ লিমিটেড জানিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

চুক্তি সই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। তিনি বলেন, আমাদেরকে এখন শ্রমনির্ভর অর্থনীতি থেকে বেরিয়ে মেধানির্ভর অর্থনীতির দিকে মনোনিবেশ করতে হবে। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের ধাক্কা সামলাতে হলে আমাদেরকে এখনই উচ্চতর প্রযুক্তির দিকে নজর দিতে হবে। বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটিতে এখন বিনিয়োগের জন্য উপযুক্ত পরিবেশ রয়েছে। যদি আমরা প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় এর নির্দেশনায় কাজ করে যেতে পারি তাহলে ২০৪১ সালের মধ্যেই বিশ্বের রিসার্চ এন্ড ডেভেলপমেন্ট হাব হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হবে বাংলাদেশ।

বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটিতে উৎপাদিত পণ্য প্রাথমিকভাবে ভারত, শ্রীলংকা, ভুটান, নেপাল ও মালদ্বিপে রফতানি করা হবে। পরবর্তীতে আমেরিকা ও আফ্রিকা মহাদেশে রফতানি করার লক্ষ্য নিয়ে তারা কাজ করবে বলে জানিয়েছেন কোয়ার্টজ ম্যানুফেকচ্যারিং লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক জাহেদ আযম।

বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক (সচিব) হোসনে আরা বেগম, এনডিসি বলেন, বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটিতে ইতোমধ্যেই প্রায় ৮২২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগের প্রস্তাবনা পাওয়া গেছে। যার মাধ্যমে প্রায় ৩৮ হাজার মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে। বিনিয়োগকারীদের আমরা ১৪টি প্রনোদনা সুবিধা দিচ্ছি। এছাড়া বিনিয়োগকারীদের সেবা সহজীকরণের লক্ষ্যে বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ অনলাইন ভিত্তিক ওয়ান স্টপ সার্ভিস চালু করেছে।

চুক্তি সই অনু্ষ্ঠানে আইসিটি বিভাগ, বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ, সামিট টেকনোপলিশ লি. ও কোয়ার্টজ ম্যানুফেকচ্যারিং লি. এর কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সারাবাংলা/ইএইচটি/একেএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন