শনিবার ২০ এপ্রিল, ২০১৯ ইং , ৭ বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৩ শাবান, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

একুশে বইমেলা দুই বাংলার প্রাণের মেলা

ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০১৮ | ৭:৪৭ অপরাহ্ণ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: পুলিশ কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, একুশে বইমেলা এপার বাংলা-ওপার বাংলার প্রাণের মেলায় পরিণত হয়েছে।

আজ (শনিবার) সন্ধ্যায় রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অমর একুশে গ্রন্থমেলায় ‘উড়াল পাখি মন’ নামে একটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে তিনি এ মন্তব্য করেন। বইটি লিখেছেন একজন পুলিশ সদস্য।

আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, সৃজনশীল লিখনী ও সাহিত্যের প্রতি ভালোবাসার জন্য ডিএমপি’র গুলশান জোনের ডিসি এস এম মোস্তাক আহমেদ এবারের বাংলা একাডেমীর সাহিত্য পুরস্কার পেয়েছেন। এটা আমাদের বাহিনীর জন্য অনেক গৌরবের।

তিনি আরও বলেন, ‘উড়াল পাখি মন’ বইয়ের লেখিকা জয়িতা শিল্পী পেশায় একজন পুলিশ সদস্য হলেও তিনি লেখেন চমৎকার। সব বয়সী পাঠক বইটি পড়ে আনন্দ পাবেন।

এ অনুষ্ঠানে অন্যান্য পুলিশ সদস্যদের বইয়ের মোড়কও উন্মোচন করা হয়। ডিসি এস এম মোস্তাক আহমেদ বলেন, আমাদের সাংবিধানিক দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি সৃজনশীল কাজে মনোনিবেশ করা অনেক কঠিন। এবারের বইমেলায় বাংলাদেশ পুলিশের ১০ থেকে ১২ জন সদস্যের বইয়ের মোড়ক উন্মোচিত হয়েছে। আশা করি ভবিষ্যতেও আরও বই আসবে।
জয়িতা শিল্পী ২৭তম বিসিএস পুলিশ ক্যাডারে যোগদান করেন। তিনি বর্তমানে ময়মনসিংহ জেলায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। আগে তার লেখা প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘জলে দাগ কেটে দাও’ ২০১৩ সালে প্রকাশিত হয়। এরপর ২০১৭ সালে ‘রাজারবাগে প্রজার পুলিশ’ প্রবন্ধ গ্রন্থটি প্রকাশ পায়। ‘উড়াল পাখি মন’ লেখকের তৃতীয় গ্রন্থ।

সারাবাংলা/এসআর/এমএ

একুশে বইমেলা দুই বাংলার প্রাণের মেলা
বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন