বিজ্ঞাপন

‘টিআইএনধারী প্রত্যেকেকে রিটার্ন দাখিলে বাধ্য করা হবে’

December 8, 2019 | 4:01 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: দেশে যত টিআইএনধারী আছে প্রত্যেকের সাথে যোগাযোগ করে তাদেরকে রিটার্ন দাখিলে বাধ্য করা হবে বলে জানিয়েছেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া।

বিজ্ঞাপন

রোববার ( ৮ ডিসেম্বর) দুপুরে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সম্মেলন কক্ষে ১০ ডিসেম্বর জাতীয় ভ্যাট দিবস ও জাতীয় ভ্যাট সপ্তাহ-২০১৯ উপলক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।

মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘গত বছর ২২ লাখ রিটার্ন দাখিল হয়েছিল। এবছর সেটা ২ লাখ বেড়ে ২৪ লাখ হয়েছে। আরও ৫০ হাজার রিটার্ন দাখিল হবে। দেশে টিআইএনধারী আছে প্রায় ৪৬ লাখ। আমি অফিসারদের সবার সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলেছি। তাই যত টিআইএনধারী আছে সবার সঙ্গে যোগাযোগ করে প্রত্যেককে রিটার্ন দাখিলে বাধ্য করা হবে। তাদের রিটার্ন ও ট্যাক্স প্রদানে বাধ্য করা হবে। আমাদের মানসিকতার পরিবর্তন আনতে হবে।’

বিজ্ঞাপন

এনবিআর কর্মকর্তাদের উদ্দেশে তিনি আরও বলেন, ‘রাজস্ব আহরণে প্রথমে সবাইকে অনুরোধ করতে হবে। পরে কথা না শুনলে আইন প্রয়োগ করতে হবে। তবে মনে রাখতে হবে, রাজস্ব আহরণে ব্যবসায়ীরা যেন হয়রানির শিকার না হন। অপরদিকে ব্যবসায়ীরা ভ্যাট প্রদান করতে চান না। কিন্তু এই ভ্যাট তো তিনি দিচ্ছেন না। ভ্যাট দেয় জনগণ। সেটা সঠিকভাবে সরকারের কোষাগারে জমা দেওয়া ব্যবসায়ীর দায়িত্ব। কিন্তু তারা সেটাও করতে চান না। এবার নতুন যে ভ্যাট আইন বাস্তবায়ন করা হয়েছে পুরোটাই ব্যবসা বান্ধব।’

ভ্যাট আইন বাস্তবায়নে প্রথমে রাজস্ব আহরণ কিছুটা খারাপ ছিল উল্লেখ করে এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, ‘নতুন ভ্যাট আইন ২০১২ সালে বাস্তবায়ন হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু আমাদের বিলম্ব হয়েছে। সর্বশেষ চলতি বছরে ভ্যাট আইন বাস্তবায়ন হওয়ায় ব্যবসায়ীরা কিছুটা দ্বিধা-দ্বন্ধে পড়ে যান। যার কারণে রাজস্ব আহরণ প্রথম দুই-তিন মাসে খারাপ ছিল। আমদানি ও রফতানি কম হওয়ায় সমস্যা হয়েছে। বর্তমানে রাজস্ব আহরণে গতি ফিরে এসেছে। এই ভ্যাট আইন পুরোটা ব্যবসায়ীদের সুবিধার জন্য করা হয়েছে। এরপরও যদি ভ্যাটে প্রবৃদ্ধি ভালো না হয় তাহলে সেটা দুঃখজনক। তবে আশা করছি এবছর ভ্যাটে রাজস্ব আহরণ বাড়বে।’

মোশাররফ হোসেন আরও বলেন, ‘চলতি মাসে তথা ডিসেম্বরেই ইএফডি মেশিন দোকানে বসানো শুরু হবে। এরই মধ্যে মেশিনগুলো চট্টগ্রাম বন্দরে চলে এসেছে। আমাদের ইএফডি মেশিন ক্রয়ে কিছুটা বিলম্ব হয়েছে। এই দরপত্রটি আন্তর্জাতিক মানদণ্ডে করতে হয়েছে। নয় মাস আগে এর প্রক্রিয়া শুরু হয়। টেন্ডার প্রক্রিয়া থেকে শুরু করে সবকিছুতে একটু বেশি সময় লেগেছে। টেন্ডার পাওয়া কোম্পানিকে প্রাথমিক পর্যায়ে ১০ হাজার ইএফডি মেশিন দিতে ৫ মাস সময় দেওয়া হয়েছে। প্রথমে ১০ হাজার মেশিন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বসবে। এরপর ৯০ হাজার মেশিন বসবে। তারপর ধারাবাহিকভাবে সব ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে মেশিনগুলো বসানো হবে। তবে এই মেশিন এখন বিনামূল্যে দিলেও পরবর্তী সময়ে প্রতিটি মেশিনের দাম ১৭ হাজার টাকা আদায় করা হবে। তবে মেশিনের দাম নেওয়া হলেও সফটওয়্যারের কোনো দাম নেওয়া হবে না।’

এদিকে ভ্যাট দিবস উপলক্ষে ১০ ডিসেম্বর এনবিআর র‌্যালি, সভা-সেমিনার, রচনা প্রতিযোগিতা, সবোর্চ্চ ভ্যাট প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানকে সম্মাননা, টেলিভিশনে টকশো, বিশেষ ক্রোড়পত্র, ব্যানার ফেস্টুন ও এইবার প্রথম ভ্যাট দিবস নিয়ে নাটক তৈরি করেছে এনবিআর। সংবাদ সম্মেলনে এনবিআরের ভ্যাট বিভাগের সকল ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

সারাবাংলা/এসজে/পিটিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন