বিজ্ঞাপন

পুঁজিবাজারে ব্যাপক দরপতন, সূচক ৪০ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন

December 9, 2019 | 4:44 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: পুঁজিবাজারে টানা দ্বিতীয় দিনের মতো বড়ধরনের দরপতন হয়েছে। আগের দিনের মতো সোমবার (৯ ডিসেম্বর) ব্যাপক দরপতন দিয়ে শেষ হয়েছে লেনদেন। এদিন দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচক ৬২ পয়েন্ট কমে ৪ হাজার ৫৩৩ পয়েন্টে নেমে আসে। এটি আগের ৪০ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন। এর আগে ২০১৬ সালের ৩১ আগস্ট ডিএসইর প্রধান সূচক ৪ হাজার ৫৩৩ পয়েন্টে নেমেছিল।

বিজ্ঞাপন

এদিকে পুঁজিবাজারে ব্যাপক দরপতনের পিছনে বিনিয়োগকারীদের আস্থার সংকটকে একটি বড় কারণ বলে মনে করছেন বাজার বিশ্লেষকরা। তাদের মতে, দেশের আর্থিক সেক্টরের সার্বিক প্রভাব পুঁজিবাজারে পড়েছে। বিশেষ করে ব্যাংক খাতের অস্থিরতা পুঁজিবাজারে প্রভাব ফেলেছে বেশি। এছাড়াও অব্যাহত দরপতনের কারণে বিনিযোগকারীদের মধ্যে বড় ধরনের আস্থার সংকট দেখা দিয়েছে।

সোমবার ডিএসইতে ৩৫৩টি কোম্পানির ১০ কোটি ৪০ লাখ ৫ হাজার ৪৯১টি শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের লেনদেন হয়েছে। লেনদেন হওয়া এসব শেয়ার ও ইউনিটের মধ্যে দাম বেড়েছে ৬৭টির, কমেছে ২৩৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৫৩টির দাম। দিনশেষে ডিএসই ব্রড ইনডেক্স আগের কার্যদিবসের চেয়ে ৬২ পয়েন্ট কমে ৪ হাজার ৫৩৩ পয়েন্টে নেমে আসে। ডিএস-৩০ মূল্য সূচক ২১ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৫৬১ পয়েন্ট, ডিএসইএস শরীয়াহ সূচক ১৯ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ২২ পয়েন্টে নেমে আসে। এদিন ডিএসইতে ২৭৫ কোটি ২৯ লাখ টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে।

অন্যদিকে দেশের অপর পুঁজিবাজার চট্রগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) ২৩৭টি কোম্পানির ৫২ লাখ ৪৭ হাজার ৪২টি শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের লেনদেন হয়েছে। লেনদেন হওয়া এসব শেয়ার ও ইউনিটের মধ্যে দাম বেড়েছে মাত্র ৬০টির, কমেছে ১৪৮টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৯টির কোম্পানির শেয়ারের দাম। দিনশেষে সিএসইতে ১৪ কোটি ৬৭ লাখ ৭২ হাজার টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে। এদিন সিএসইর প্রধান সূচক আগের দিনের চেয়ে ১৫১ পয়েন্ট কমে ১৩ হাজার ৮২৮ পয়েন্ট নেমে আসে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জিএস/পিটিএম

বিজ্ঞাপন

Tags: ,

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন