রবিবার ২৬ জানুয়ারি, ২০২০ ইং

ছোট মাঠে এত দলের অনুশীলন দেখে বিস্মিত কোচ

ডিসেম্বর ৯, ২০১৯ | ৬:৫৩ অপরাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

জাতীয় ক্রিকেটে একাডেমির মাঠের একপাশে চলছে খুলনা টাইগার্সের অনুশীলন। অন্যপাশে অনুশীলনে ঘাম ঝড়াচ্ছে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। মাঠের ঠিক মাঝের একটি নেটে ব্যাটিং অনুশীলন করছে রাজশাহী রয়্যালস অপর নেটে ব্যাটিংয়ে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। ছিল রংপুর রেঞ্জার্সের অনুশীলনও। এত ছোট মাঠে এতগুলো দলের অনুশীলন দেখে বিস্মিত হয়েছেন রংপুর রেঞ্জার্স কোচ মার্ক ও’ডনেল।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (৯ ডিসেম্বর) দিন ব্যাপী অনুশীলনে ঘাম ঝড়িয়েছে যমুনা ব্যাংক ঢাকা প্লাটুন, সিলেট থান্ডার এবং কুমিল্লা ওয়ারিয়র্সও। আয়তনে ছোট ক্রিকেট বোর্ডের একাডেমির ছোট মাঠে এতগুলো দলের অনুশীলন দেখে যেন ধাক্কাই খেলেন রংপুরের এই কিউই কোচ।

বিজ্ঞাপন

‘একই মাঠে ছয় দল (আসলে পাঁচ দল) একসঙ্গে নেমেছে! আরও কিছু দর্শকও আছে দেখছি। ভয় লাগছে কখন কার গায়ে গিয়ে বল লাগে। এত ছোট জায়গায় এতগুলো দল একসঙ্গে অনুশীলন করছে, আমি কখনো এরকম দেখিনি।’

অনুশীলনের জন্য পর্যাপ্ত জায়গা নেই! দিনের পর এভাবেই চলে আসছে! নিদারুণ দুঃখের হলেও এটিই বাংলাদেশ ক্রিকেটের রূঢ় বাস্তবতা। অনূর্ধ্ব ১৬ দল থেকে শুরু করে জাতীয় দলের অনুশীলনের জন্য সবেধন নীলমনি বলতে এই একটিই মাঠ।

পরিতাপের শেষ এখানেই নয়, ঘরোয়া ক্রিকেটের মৌসুমেও ক্রিকেটাররাও এই মাঠেই অনুশীলন সেরে থাকেন। মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামেও অনুশীলন হয়। তবে সেটা শুধুই জাতীয় দলের ছেলে ক্রিকেটারদের জন্য বরাদ্দ। কোন আন্তর্জাতিক  সিরিজ বা টুর্নামেন্ট শুরু হলে অনুশীলনটি এখানেই হয়ে থাকে।

অথচ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের প্রেক্ষাপটে  বাংলাদেশ একটি টেস্ট খেলুড়ে দল এবং ওয়ানডে ফরম্যাটে এশিয়ার উঠতি পরাশক্তি।

সারাবাংলা/এমআরএফ/এনএ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন