বিজ্ঞাপন

ভারতের রাজ্যসভায় উঠছে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল

December 11, 2019 | 11:18 am

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১২ ঘন্টার টানা বিতর্কের পর লোকসভায় পাস হওয়া নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলটি সদস্যদের ভোটাভুটির জন্য বুধবার (১১ ডিসেম্বর) ভারতীয় সংসদের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় উঠছে। খবর এনডিটিভি।

বিজ্ঞাপন

ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) এক সূত্র এনডিটিভিকে জানিয়েছে, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলটি রাজ্যসভায় পাস হওয়ার ব্যাপারে তারা মোটামুটি নিশ্চিত।

এর আগে, লোকসভায় বিজেপি নেতৃত্বাধীন ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্সের (এনডিএ) সংখ্যাগরিষ্ঠতার সুবিধা নিয়ে ৩১১-৮০ ভোটে নাগরিকত্ব বিলটি পাস করানো হয়। কিন্তু রাজ্যসভায় সেই সু্যোগ থাকছে না।

রাজ্যসভার আসনের হিসাবে মোট ২৪০ এর মধ্যে ১২১ আসনের ভোটে সংখ্যাগরিষ্ঠতা নির্ধারিত হবে। তার মধ্যে এনডিএ জোট, অল ইন্ডিয়া আন্না দ্রাভিদা মুন্নেত্রা কাঝাগাম (এআইএডিএমকে), জনতা দল ইউনাইটেড, আকেলি দল মিলে রয়েছে ১১৬ সিট। অন্যান্য দল থেকে নির্বাচিত আরও ১৪ জন রাজ্যসভা সদস্যের সমর্থন প্রত্যাশা করে এনডিএ জোট। তাহলে তাদের হিসাব দাঁড়ায় ১৩০ এ। ওই ১৪ সদস্যের মধ্যে বিজেপির সাবেক মিত্র শিবসেনা সদস্যরা রয়েছেন। তারা লোকসভায় এই বিলটির পক্ষে ভোট দিলেও, রাজ্যসভায় এই বিলের পক্ষে সমর্থন দিচ্ছেন কি না, বিষয়টি এখনও স্পষ্ট নয়।

বিজ্ঞাপন

তবে, বিলটি পাসের জন্য সংখ্যাগরিষ্ঠতার প্রশ্নে বিজেপির চিন্তিত হবার কোনো কারণ নেই, উড়িষ্যার বিজু জনতা দলের (বিজেডি) ৭ রাজ্যসভা সদস্য, অন্ধ্র প্রদেশের ইয়েদুগুরি সান্দিনি রেড্ডির কংগ্রেস পার্টির (ওয়াইএসআরসিপি) ২ রাজ্যসভা সদস্য, চন্দ্রবাবু নাইড়ুর তেলেগু দেশম পার্টির (টিডিপি) ২ রাজ্যসভা সদস্য যারা কোনো জোটে নেই, তারাও এই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলটি সমর্থন করবে বলে মনে করছে এনডিএ জোট।

অন্যদিকে, ভারতীয় কংগ্রেসের নেতৃত্বাধীন ইউনাইটেড পিপলস অ্যালায়েন্সের (ইউপিএ) রাজ্যসভায় ৬৪ আসন, তারা নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলটির বিরোধীতা করে অন্যান্য দলের আরও ৪৬ সদস্যের সমর্থন প্রত্যাশা করছে। তাদের মধ্যে তৃণমূল কংগ্রেস, সমাজবাদী পার্টি, তেলেঙ্গানা রাষ্ট্র সমিতি (টিআরএস), কমিউনিস্ট পার্টি অব ইন্ডিয়া মার্ক্সিস্ট ( সিপিআইএম) রয়েছে। তাতে বিরোধীদের ভোটের হিসাব দাঁড়ায় ১১০ এ।

তবে, অমর সিংয়ের মতো কয়েকজন রাজ্যসভা সদস্য অসুস্থতার কারণে এই ভোটাভুটিতে অনুপস্থিত থাকবেন।

বিজ্ঞাপন

প্রসঙ্গত, এই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলটি ভারতীয় আইনসভার উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় পাস হয়ে আইন আকারে গৃহীত হলে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের মতো মুসলিম অধ্যুষিত দেশগুলো থেকে আসা অন্যান্য ধর্ম অনুসারীদের (হিন্দু, জৈন, শিখ, পার্সি) নাগরিকত্ব আবেদন অন্যান্যদের তুলনায় দ্রুত গ্রহণ করা হবে। এই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরোধীতা করে ইউপিএ জোট এবং তার সঙ্গীদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এই বিলের মাধ্যমে ভারতের সাংবিধানিক ধর্ম নিরপেক্ষ চরিত্র আইনগতভাবে হননের রাস্তা তৈরি করা হচ্ছে।

সারাবাংলা/একেএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন