সোমবার ২৭ জানুয়ারি, ২০২০ ইং

কাঙ্খিত জয়ে চনমনে যমুনা ব্যাংক ঢাকা প্লাটুন

ডিসেম্বর ১৪, ২০১৯ | ১:৫৪ পূর্বাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা:  বঙ্গবন্ধু বিপিএল-এ আজকের ম্যাচে কুমিল্লা ওয়ারিয়র্সের বিপক্ষে ২০ রানের জয়ে চাঙা হয়ে উঠেছে যমুনা ব্যাংক ঢাকা প্লাটুন। ম্যাচ শেষে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনের শুরুতেই দলের সবচেয়ে তরুণ সদস্য মেহেদি হাসান এক সাংবাদিকের প্রশ্নের পর হো হো করে হেসে ওঠেন।  সেই হাসিতেই স্পষ্ট ফুটে ওঠে বহুকাঙ্খিত এই জয়ে কতটা চনমনে যমুনা ব্যাংক ঢাকা প্লাটুনের ড্রেসিংরুম।

বিজ্ঞাপন

বঙ্গবন্ধু বিপিএলে মাশরাফিদের দলটাকেই সবচেয়ে ভারসাম্যপূর্ণ মনে করা হচ্ছে। তাই তাদের কাছে ভক্তদের চাওয়াও পর্বত প্রমান। সেই চাওয়া-পাওয়ার হিসেব গতকালের ম্যাচে মেলেনি। কিন্তু আজ, ২০ রানের দারুণ এক জয়ে পুরো ঢাকা শিবিরই প্রাণবন্ত।

৫৩ বলে তামিমের ৭৪ ও থিসারা পেরেরার ১৭ বলে ৪২ রানের টর্নেডো ইনিংসে সালাউদ্দিনের শিষ্যরা নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটের বিনিময়ে ১৮০ রানের পাহাড়ের চূড়ায় চেপে বসল। যা ছুঁতে গিয়ে পেরেরা (৫), ওয়াহাব রিয়াজ (২) ও মাশরাফি তোপে (১) ১৬০ রানে থেমে গেল কুমিল্লা ওয়ারিয়র্স।

বিজ্ঞাপন

বড় দলগুলোর সবার একই সমস্যা- তাদের উপর থাকে অতিরিক্ত প্রত্যাশার চাপ। যেমন, গতকাল রাজশাহী রয়্যালসের কাছে ৯ উইকেটের অপ্রত্যাশিত হারের পর সংবাদ সম্মেলনে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্ত্তজাকে বিমর্ষ চেহারাতেই ফুটে উঠেছিলো মানসিক চাপ। যদিও মুখ ফুটে তিনি সেকথা বলেননি। তার বাচনভঙ্গি ও শরীরী ভাষাই বলে দিচ্ছিল, হারটি তাদের কতটা  মানসিক চাপে ফেলেছে। আজকের ম্যাচ জেতায় পুরো দলের চেহারাতেই ফুটে উঠেছে তৃপ্তি আর চনমনে ভাব। এই একটি জয় হয়ে উঠেছে তাদের অনাগত আরও অনেক সাফল্যের জ্বালানি।

তরুণ ক্রিকেটার মেহেদি মনে করেন, ‘প্রথম ম্যাচ হারার পরে এই ম্যাচ জেতায় আমাদের আত্নবিশ্বাস অনেকটাই বেড়েছে। ব্যাটসম্যানরাও ফর্মে ফিরেছেন যা আমাদের জন্য খুবই ভাল খবর।’

ব্যাটসম্যানদের ফর্মে ফেরা নিয়ে মেহেদি যা বলেছেন তা এক বিন্দুও ভুল নয়। টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচে ঢাকার দুই প্রাণ ভোমরা তামিম ইকবাল ও থিসারা পেরেরা ব্যাট হাতে জ্বলে না ওঠায় দলের ফলাফলও ছিল হতশ্রী। পক্ষান্তরে দ্বিতীয় ম্যাচে তাদের জ্বলে ওঠায় পুরোপুরি ইউ টার্ন নিয়ে নিয়েছে ঢাকা প্লাটুন।

সারাবাংলা/এমআরএফ/আরএফ/

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন