বিজ্ঞাপন

উন্মুক্ত স্থান-বাড়ির ছাদে বড়দিন ও থার্টি ফার্স্টের অনুষ্ঠান নয়

December 19, 2019 | 8:53 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের ধর্মীয় উৎসব ‘বড়দিন’ ও খ্রিস্টিয় নববর্ষ ‘থার্টি ফার্স্ট’ নাইট ঘিরে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। এ উপলকক্ষে ঢাকা শহরের কোনো বাড়ির ছাদে অনুষ্ঠান করা যাবে না। এমনকি আতশবাজি-পটকা ফোটানো নিষিদ্ধ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ডিএমপি।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (১৯ ডিসেম্বর) সকাল ১১টায় ডিএমপি হেডকোয়ার্টার্সে বড়দিন ও থার্ট ফার্স্ট নাইট উপযাপন উপলক্ষে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত সমন্বয় সভায় এ তথ্য জানানো হয়। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. শফিকুল ইসলাম সভায় সভাপতিত্ব করেন।

বৈঠক সূত্রে জানা যায়, বড়দিনে প্রত্যেকটি চার্চে পর্যাপ্ত সংখ্যক পুলিশ সদস্য নিয়োজিত থাকবে। প্রতিটি চার্চে আর্চওয়ে দিয়ে দর্শনার্থীকে ঢুকতে দেওয়া হবে। পাশাপাশি মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে ও ম্যানুয়ালি তল্লাশি করা হবে। অনুষ্ঠানস্থল ডগস্কোয়াড দিয়ে সুইপিং করা হবে। নিরাপত্তায় থাকবে ফায়ার টিম ও অ্যাম্বুলেন্স ব্যবস্থা। চার্চ এলাকায় নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ ব্যবস্থা থাকবে। এ ছাড়া চার্চ এলাকায় কোনো ভাসমান দোকান বা হকার বসতে দেওয়া হবে না। কোনো প্রকার ব্যাগ, ট্রলিব্যাগ ও ব্যাগপ্যাক নিয়ে চার্চে আসা যাবে না।

বিজ্ঞাপন

ডিএমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মাসুদুর রহমান জানান, বড়দিনের পাশাপাশি থার্টি ফার্স্ট নাইটে কোনো উন্মুক্ত স্থান বা বাড়ির ছাদে গান-বাজনা করা ও আতশবাজি ফোটানো নিষিদ্ধ থাকবে। সব ধরনের ডি জে পার্টি নিষিদ্ধ থাকবে। থার্টি ফার্স্ট নাইটের দিন আইডি কার্ড ব্যতীত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় কাউকে ঢুকতে দেওয়া হবে না। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে গাড়ি প্রবেশের ক্ষেত্রে ঢাবির স্টিকার থাকতে হবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশের ক্ষেত্রে শাহবাগ ও নীলক্ষেত এলাকা ব্যবহার করতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে ডিএমপি কমিশনার মো. শফিকুল ইসলাম সকলকে বড়দিন ও থার্টি ফার্স্ট নাইটের অগ্রিম শুভেচ্ছা জানিয়ে পুলিশকে সহযোগিতার আহ্বান জানান।

সভায় উপস্থিত ছিলেন ডিএমপি’র ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর, খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের প্রতিনিধি, সরকারের বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা, ফায়ার সার্ভিস, ডিপিডিসি, ডেসকোসহ সরকারি বিভিন্ন সেবাদানকারী সংস্থার প্রতিনিধিরা।

সারাবাংলা/ইউজে/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন