শনিবার ১৮ জানুয়ারি, ২০২০ ইং

ধর্ষণের ঘটনায় দ্রুত বিচারের দাবি নারী সাংবাদিকদের

জানুয়ারি ১৪, ২০২০ | ১:২২ অপরাহ্ণ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: দেশে নারী নির্যাতনের  ঘটনায় ৯৯ ভাগ ক্ষেত্রেই বিচার হয় না। এছাড়া নারী ও শিশু ধর্ষণের ঘটনায় মামলা হলেও তার সুরাহা হয়না । এ অবস্থায় দিনকে দিন ধর্ষণের ঘটনা বেড়ে যাওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন নারী সাংবাদিকরা।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) বাংলাদেশ নারী সাংবাদিক কেন্দ্রের উদ্যোগে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত মানববন্ধন কর্মসূচিতে এই উদ্বেগ প্রকাশ করে এসব ঘটনায় দ্রুত বিচার চান তারা।

মানববন্ধনে নারী ও শিশু ধর্ষণ ও নির্যাতন বন্ধের দাবি জানিয়ে বক্তারা বলেন ,নারী ও শিশু নির্যাতনকারীদের দ্রুত বিচারের মাধ্যমে কঠোর শাস্তি কার্যকর করতে হবে।

বিজ্ঞাপন

নারী সাংবাদিক কেন্দ্রের সভাপতি নাসিমুন আরা হক মিনু বলেন,আমরা ধর্ষকের মৃত্যুদণ্ড ও খোঁজাকরণের মত শাস্তি চাই। কঠোর শাস্তির বিধান করে অপরাধীদের মধ্যে বার্তা পৌঁছাতে হবে। কেবল দ্রুত বিচার ও তা বাস্তবায়ন করায় দেশে অ্যাসিড সন্ত্রাসের ভয়াবহতা কমে গেছে। আক্রমনের ঘটনা প্রায় নির্মূল করা গেছে। রাতারাতি অপরাধীদের অপরাধমূলক মানসিকতা চলে যাবে না। এক্ষেত্রে প্রয়োজন দ্রুত বিচার ও বাস্তবায়ন।

বক্তারা বলেন, দেশে শুধু নারীরাই নন, ছেলে ও মেয়ে শিশুরাও ধর্ষণ ও নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। নারী ও শিশু ধর্ষণ ও নির্যাতনের ঘটনায় দ্রুত বিচার ও তা কার্যকর করার দাবি জানান বক্তারা।

মানববন্ধনে নারী সাংবাদিকদের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করেন ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটির সভাপতিসহ বেশ কয়েকজন পুরুষ সদস্যও।
ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটির সভাপতি রফিকুল ইসলাম আজাদ বলেন, সারাদেশে নারী ও শিশু ধর্ষণ বেড়ে গেছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে অপরাধীদের দৃষ্টটান্তমূলক শাস্তির আহবান জানাই। আর একটি নারীও যেন ধর্ষণের শিকার না হন।

এই প্রতিবাদ কর্মসূচিতে একাত্মতা প্রকাশ করে পুরুষ সাংবাদিকরা বলেন, শুধু নারী সাংবাদিকরাই কেন প্রতিবাদ জানাবে, এটা আমাদের সবার দায়িত্ব। আমরা সবাই মিলেই ধর্ষণের মত ঘৃণ্য অপরাধ থেকে সমাজকে মুক্ত করব। আগামী প্রজন্মকে নিরাপদ সমাজ গড়ে দেওয়ার দায়িত্ব আমাদের সবার।

সারাবাংলা/আরএফ/জেডএফ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন