শনিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬, ৪ রজব ১৪৪১

বিজ্ঞাপন

সুযোগ থাকলে ভোট পেছানোর পক্ষে আতিকুল

জানুয়ারি ১৫, ২০২০ | ১১:১৫ অপরাহ্ণ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ‘সুযোগ থাকলে সরস্বতী পূজার জন্য ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তারিখ পেছানো যেতে পারে’ বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়রপ্রার্থী আতিকুল ইসলাম।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (১৫ জানুয়ারি) সারাবাংলাকে তিনি এ মন্তব্য করেন।

আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনের ক্ষমতা আছে। তারা চাইলে নির্বাচনের তারিখ পেছাতে পারেন। সেটি উনারা করতেই পারেন। আমি নির্বাচন কমিশনের কাছে অনুরোধ করব, যদি সুযোগ থাকে অবশ্যই এটি আপনারা পেছাতে পারেন।’

বিজ্ঞাপন

উল্লেখ্য, ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনের ভোটগ্রহণের তারিখ ঘোষণার পর বিভিন্ন মহল থেকে তারিখ পরিবর্তনের দাবি জানানো হয়। বাংলাদেশ হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের পক্ষ থেকে একাধিকবার ভোটের তারিখ পেছাতে চিঠি দেওয়া হয় নির্বাচন কমিশনে। অন্য একাধিক সংগঠনও নির্বাচন কমিশনকে ভোটের তারিখ পেছানোর আহ্বান জানায়। তবে তাতে কাজ হয়নি। নির্বাচন কমিশন নিজেদের সিদ্ধান্তে অনড় থাকে।

পরে সরস্বতী পূজার সঙ্গে ঢাকা সিটি নির্বাচন অনুষ্ঠানের তারিখ ধর্মীয় দিক থেকে সাংঘর্ষিক উল্লেখ করে হাইকোর্টে রিট করেন আইনজীবী অশোক কুমার ঘোষ। নির্বাচন কমিশন জানিয়েছিল, আদালত নির্দেশ দিলেই কেবল তারা ভোটের তারিখ পেছাতে পারবেন। তবে মঙ্গলবার শুনানি নিয়ে রিটটি খারিজ করে দেন হাইকোর্ট। ফলে ৩০ জানুয়ারিই ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনের তারিখ বহাল রয়েছে।

আদালতের এ আদেশের পর রিটকারী আইনজীবী অশোক কুমার ঘোষ জানিয়েছিলেন, তিনি আপিল করবেন।

অন্য দিকে আদালতের এ আদেশের পরে মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে শাহবাগ চত্বর থেকে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটগ্রহণের তারিখ পেছাতে নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) ১৮ ঘণ্টার আলটিমেটাম দেয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষার্থীরা। একইসঙ্গে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের চেষ্টার অভিযোগে ঢাবি শিক্ষার্থীরা প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদাসহ অন্য নির্বাচন কমিশনারদেরও পদত্যাগও দাবি করে তারা।

বুধবার (১৫ জানুয়ারি) বেলা ১২টা থেকে ঢাবি শিক্ষার্থীরা তাদের কর্মসূচি শুরু করে। সরস্বতী পূজা থাকায় ৩০ জানুয়ারি ঢাকা দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তনের দাবিতে নির্বাচন কমিশন অভিমুখে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পদযাত্রা শুরু করে। পরে পুলিশের বাধায় শাহবাগ মোড়েই অবস্থান নেয় শিক্ষার্থীরা।

সারাবাংলা/এসবি/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন