সোমবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১১ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৯ জমাদিউস-সানি ১৪৪১

বিজ্ঞাপন

বগুড়ায় পাগলা কুকুরের কামড়ে শিশুসহ ৭ জন আহত

জানুয়ারি ১৭, ২০২০ | ৬:৫০ অপরাহ্ণ

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

বগুড়া: জেলার শেরপুর পৌর শহরের খন্দকারপাড়া এলাকায় গত তিন দিনে পাগলা কুকুরের কামড়ে শিশুসহ ৭ জন আহত হয়েছে। স্থানীয়দের অভিযোগ, পৌর কর্তৃপক্ষের উদাসীনতায় বেওয়ারিশ কুকুরের সংখ্যা দিনদিন বেড়েই চলেছে। যে কারণেই এসব ঘটনা ঘটছে।

বিজ্ঞাপন

কুকুরের কামড়ে আহতরা হলেন- সাজেদা বেগম (৭০), ছামুদা পারভিন (৭), মনির (৪), মোমিনুল হাসানসহ (৪৭) অজ্ঞাত আরও তিন জন। আহত সবাই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

জানা যায়, পৌর শহরের খন্দকারপাড়া এলাকার ময়লা পৌর কর্তৃপক্ষ পরিস্কার না করায় সেখানে কুকুরের বিচরণ চলে অবাধে। রাস্তা দিয়ে চলাচলের সময় গত তিন দিনে ওই এলাকার বাসিন্দা সাহেব আলীর মেয়ে সাজেদা বেগম, মো. শরিফের মেয়ে ছামুদা পারভিন, রায়হানের ছেলে মনির, শহিদুল ইসলামের ছেলে মোমিনুল হাসানসহ অজ্ঞাত আরও তিন জনকে কুকুর কামড়ে দিয়েছে। এ ঘটনায় কুকুর আতংকে রয়েছে পৌরবাসি। দ্রুত এর ব্যবস্থা না নেওয়া হলে কুকুরের কামড়ে আহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

বিজ্ঞাপন

৪নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা জাহাঙ্গীর ইসলাম বলেন, ‘খন্দকার পাড়ার ঘটনা আমি শুনেছি। আমাদের এই ওয়ার্ডবাসীকেও প্রতিদিন কুকুরের আতঙ্ক নিয়ে রাস্তায় চলাচল করতে হয়। বিষয়টি পৌর কর্তৃপক্ষকে জানালেও প্রতিকার হচ্ছে না।’

৯ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ফিরোজ আহম্মেদ জুয়েল বলেন, ‘সাদা একটি কুকুর পাগলা হয়ে কয়েকজনকে কামড় দিয়েছে। পৌরসভায় কুকুর নিধনের সরঞ্জাম না থাকায় কুকুরের বিচরণ রোধ করা যাচ্ছে না।’

পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র নাজমুল আলম খোকন বলেন, ‘কুকুর নিধনের বিষয়ে আলোচনা করে খুব দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

সারাবাংলা/এমও

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন