বিজ্ঞাপন

ফুটবল থেকে হেড উঠিয়ে দিচ্ছে স্কটল্যান্ড

January 18, 2020 | 1:30 pm

স্পোর্টস ডেস্ক

ডি বক্সের বাইরে বা কর্নার কিক থেকে উড়ে আসছে বল। গোলপোস্টের কাছাকাছি দাঁড়িয়ে আক্রমণভাগের খেলোয়াড়। প্রস্তুত হেড দিতে। এগিয়ে আসছে বল এবং দুর্দান্ত এক হেডে জড়িয়ে গেলো জালে। এবং গোল।

বিজ্ঞাপন

ফুটবলে হেডের এই দৃশ্য অতি সাধারণ। তবে অদূর ভবিষ্যতে হয়তো এই দৃশ্য বিলুপ্ত হয়ে যাবে স্কটল্যান্ডের ফুটবল থেকে। ইউরোপের প্রথম দেশ হিসেবে শিশুদের ফুটবল থেকে হেড করার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে দেশটি।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রকাশিত এক প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্কটিশ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন (এফএ)। সাবেক খেলোয়াড়রা ডিমেনশিয়ায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর ঝুঁকিতে- এই রিপোর্টের কারণে ফুটবল থেকে হেড নিষিদ্ধের উদ্যোগ নিয়েছে তাঁরা।

কিন্তু হেড ছাড়া ফুটবল এমনটা কি আসলেই সম্ভব? অনেকের মনেই উঁকি দিতে পারে এই প্রশ্নের। এর উত্তর খুঁজতে হলে আমাদের তাকাতে হবে যুক্তরাষ্ট্রের দিকে।

বিজ্ঞাপন

হেড ছাড়াই কিভাবে ফুটবল খেলা যায় তাঁর দৃষ্টান্ত স্থাপন করে রেখেছে তাঁরা। ইতোমধ্যেই দেশটি তরুণদের ফুটবলে হেড নিষিদ্ধ করেছে। ২০১৬ সাল থেকে তিনটি ইয়ুথ ন্যাশনাল টিম ও অ্যাকাডেমির এবং মেজর লিগের সকার ক্লাবগুলো ইয়ুথ টিমগুলোতে হেডের ওপর বাধ্যবাধকতা আরোপ করে দেশটি। চালু করে নতুন কিছু নিয়ম।

নতুন নিয়ম অনুযায়ী ১০ বছরের কম বয়সী খেলোয়াড়দের হেড করা শেখানো থেকে বিরত রাখতে নির্দেশ দেয়া হয়। কেউ যদি ম্যাচে ইচ্ছাকৃতভাবে হেড করে তবে প্রতিপক্ষ ফ্রি কিক লাভ করবে। আর গোল এরিয়াতে এমন ঘটলে সে ক্ষেত্রে প্রতিপক্ষ পাবে ইনডিরেক্ট ফ্রি কিক।

তবে ১১ এবং ১২ বছর বয়সী ফুটবলাররা হেড দেয়া শিখতেও পারবে এবং ম্যাচে তা প্রয়োগও করতে পারবে বলে উল্লেখ করা হয় সেখানে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এনএ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন