বিজ্ঞাপন

পা পাকিস্তানে চোখ অস্ট্রেলিয়ায়

January 19, 2020 | 6:18 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজকে সামনে রেখে এক ঝাঁক তরুণ ক্রিকেটার দলে ডেকেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। টিম ম্যানেজমেন্টের উদ্দেশ্য কি? সেটা বুঝতে রকেট সায়েন্স পড়ার প্রয়োজন নেই। স্কোয়াডটি আপাতত পাকিস্তান সিরিজের জন্য দেওয়া হলেও অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়াতে অনুষ্ঠেয় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য এখান থেকেই প্লেয়ার বেছে নেবে টাইগার টিম ম্যানেজমেন্ট।

বিজ্ঞাপন

২৪ জানুয়ারি থেকে পাকিস্তান সিরিজকে সামনে রোববার (১৯ জানুয়ারি) মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শুরু হয়েছে বাংলাদেশ দলের তিন দিনের অনুশীলন ক্যাম্প। সেখানে হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গোও সংবাদ মাধ্যমকে বিষয়টি অবহিত করলেন।

‘এই দলটি হচ্ছে তারুণ্য নির্ভর। এটা মূলত আমাদের সিস্টেমের গভীরতাকেই নির্দেশ করে। আশা করছি এখান থেকে কিছু প্লেয়ার অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বকাপ স্কোয়াডে জায়গা করে নেবে। যদিও এটা চুড়ান্ত নয়।’

‘নির্ভর করছে কে কেমন পারফর্ম করে। যদি দেখি কেউ ভালো খেলছে না তাহলে আমরা তাকে রাখব না। আর যদি দেখি কারো ভেতরে প্রতিভা আছে তাকে নিঃসন্দেহে রাখব। এই সিরিজ শেষে আমরা আমাদের স্কোয়াডকে যত সম্ভব ছোট করে ফেলব। আমার ধারণা পরবর্তী সিরিজগুলোতে আমরা ১৬-১৭ প্লেয়ারকে রাখব।’

বিজ্ঞাপন

পাকিস্তানের বিপক্ষে টপ অর্ডারে রাখা হয়েছে ৬ ক্রিকেটারকে (তামিম, লিটন, সৌম্য, শান্ত, আফিফ, নাইম শেখ)। পক্ষান্তরে মিডল অর্ডারে নাম ডাক ওয়ালার তেমন কেউই নেই। মুশফিক নাম প্রত্যাহার করে নেওয়ায় সমস্যাটি আরো প্রকট হয়েছে। ডমিঙ্গো অবশ্য এতে কোন জটিলতা দেখছেন না বরং দেখছেন পরীক্ষার অংশ হিসেবেই।

‘সৌম্য সরকার ভারতে যেখানে তিনে ব্যাটিং করেছে সেখানে পাকিস্তানে হয় ৬ এ ব্যাটিং করবে। রিয়াদ ৫ এ। আফিফ ৩-৪ এ। শান্ত বিপিএল ভালই খেলেছে। সেরা প্লেয়াররা যে কোন অর্ডারেই খেলতে পারে।

ইংলিশ অধিনায়ক ইয়োন মর্গান এবং কেন উইলিয়ামসনের উদাহরণ টেনে ডমিঙ্গো আরো বলেন, ‘আপনি মর্গানকে ৩ অথবা ৬ যেখানেই খেলান না সে কিন্তু সফল হবে। কেন উইলিয়মসনও। আমি কিন্তু এতে রোমাঞ্চিত। লিটন দাস যদি দুইয়ে অথবা চারে নামান সেও কিন্তু সফল হবে।’

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এমআরএফ/এনএ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন