বিজ্ঞাপন

ডিএনসিসি নির্বাচনে আতিকুলকে সম্মিলিত ব্যবসায়ী পরিষদের সমর্থন

January 25, 2020 | 4:37 am

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আতিকুল ইসলামকে সমর্থন দিয়েছেন সম্মিলিত ব্যবসায়ী পরিষদ।

বিজ্ঞাপন

শুক্রবার (২৪ জানুয়ারি) রাজধানীর গুলশান ক্লাবে আনুষ্ঠানিকভাবে তাকে সমর্থন দেন শীর্ষ ব্যবসায়ীদের এই সংগঠনের নেতারা।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সাবেক ও বর্তমান নেতারা।

বিজ্ঞাপন

অনুষ্ঠানে ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন দাবি-দাওয়া তুলে ধরেন এবং সুন্দর ঢাকা শহর গড়ে তুলতে বিভিন্ন প্রস্তাব দেন।

মতবিনিময় অনুষ্ঠানের সভাপতি ও ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের (এফবিসিসিআই) সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম বলেন, ‘সম্মিলিত ব্যবসায়ী পরিষদের ব্যবসায়ীরা মেয়র পদে নির্বাচিত করার জন্য আতিকুল ইসলামকে সমর্থন দিয়েছেন। একই সঙ্গে তিনি ব্যবসায়ীদের বেশকিছু দাবি তুলে ধরে বলেন, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, লাইটিং, পাবলিক ট্রান্সপোর্ট, ট্রেড লাইসেন্সসহ নানা সমস্যার সমাধানে কাজ করতে হবে।’ তাছাড়া ব্যবসায়ীরা যেন হয়রানির শিকার না হন, এমন প্রতিশ্রুতি দাবি করেন।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র পদের নির্বাচনে আতিকুল ইসলামকে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে এফবিসিসিআইর সাবেক সভাপতি এ. কে. আজাদ বলেন, ‘৯ মাস খুবই কম সময়। মেয়রের দায়িত্বে থেকে তিনি সব কাজ করতে পারেননি। আগামী দিনে বিজয়ী হলে ঢাকা সিটির বড় পরিবর্তন আনবেন। সবাইকে নিয়ে সম্মিলিতভাবে কাজ করবেন।’

তিনি বলেন, ‘আতিকুল ইসলাম তৈরি পোশাক রপ্তানিকারকদের সংগঠন বিজিএমইএর একজন সাবেক সফল সভাপতি ও ব্যবসায়ী। বিজিএমইএর দায়িত্বে থাকাকালে কোনো ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানের মালিক বিপদে পড়লে সবার আগে এগিয়ে গেছেন। শুধু ব্যবসায়ী নন, ঢাকা সিটির নাগরিকদের সমস্যা সমাধানে তিনি কাজ করছেন। প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের অসমাপ্ত কাজ করে যাবেন তিনি। সবাই মিলে আতিকুল ইসলামকে নির্বাচিত করার জন্য আহ্বান জানান তিনি।’

এফবিসিসিআইর সাবেক সভাপতি সফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন বলেন, ‘আতিকুল ইসলাম নয় মাস খণ্ডকালীন সময়েও সফলভাবে মেয়রের দায়িত্ব পালন করেছেন। অল্প সময়ের মধ্যেও মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করেছেন। তিনি আশা করেন, আগামী মেয়াদের জন্য ঢাকা উত্তরের মেয়র পদে নির্বাচিত করলে তিনি হতাশ করবেন না। তিনি নগর পিতা হবেন না, হবেন নগরের সেবক।’

এফবিসিসিআইর সাবেক সভাপতি ও নিটল-নিলয় গ্রুপের চেয়ারম্যান আবদুল মাতলুব আহমাদ বলেন, ‘নগরবাসী যানজটে ক্ষতির সম্মুখীন হন। আতিকুল ইসলাম অঙ্গীকার করেছেন যানজটমুক্ত করবেন।’ এ কাজ করার জন্য সবাই মিলে ভোট দিয়ে তাকে বিজয়ী করার আহ্বান জানান তিনি।

বারিধারা সোসাইটির সভাপতি ও বিকল্পধারার প্রেসিডিয়াম সদস্য শমসের মবিন চৌধুরী বলেন, ‘সচেতন নাগরিক হিসেবে তিনি চান আতিকুল ইসলাম পুনরায় মেয়র হবেন। ভোটারদের সৎ, যোগ্য ও দক্ষ প্রার্থী হিসেবে তাকে বিজয়ী করার আহ্বান জানান।’

ঢাকা চেম্বারের সভাপতি শামস মাহমুদ আতিকুল ইসলামকে সমর্থন জানিয়ে বলেন, ‘তিনি নির্বাচিত হলে ট্রেড লাইসেন্স ও ভ্যাট এ দুই ইস্যুর সমাধান করবেন।’

আতিকুল ইসলাম নির্বাচনে বিজয়ী হলে একটি একটি করে সব সমস্যা সমাধান করার চেষ্টা করবেন বলে জানান। এসব সমস্যা সমাধানে পর্যায়ক্রমে কাজ করার আশ্বাস দেন তিনি।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন এফবিসিসিআইর সিনিয়র সহসভাপতি মুনতাকিম আশরাফ, সহসভাপতি সিদ্দিকুর রহমান, দিলীপ কুমার আগারওয়ালা, রেজাউল করিম রেজনু, বিপিজিএমইএর সভাপতি জসিম উদ্দিন, চট্টগ্রাম চেম্বারের সভাপতি মাহবুবুল আলম, বারভিডার সভাপতি হাবিব উল্লাহ ডন, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এসএ মান্নান কচি, গুলশান ক্লাবের সভাপতি সাইফুর রহমান, গুলশান সোসাইটির সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন, বিকেএমইএর সভাপতি মোহাম্মদ আলী খোকন ও দোকান মালিক সমিতির সভাপতি হেলাল উদ্দিন, এফবিসিসিআইর সাবেক সহসভাপতি দেওয়ান সুলতান, এফবিসিসিআইর পরিচালক নাজ ফারহানা, বিসিআইর সহসভাপতি প্রীতি চক্রবর্তীসহ অন্যান্যরা।

সারাবাংলা/এসবি/জেএইচ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন