সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ৪ ফাল্গুন ১৪২৬, ২২ জমাদিউস-সানি ১৪৪১

আধুনিক যন্ত্র ব্যবহারে দক্ষ জনবল তৈরির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

জানুয়ারি ২৮, ২০২০ | ১:৫৮ অপরাহ্ণ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: আধুনিক যন্ত্রপাতি কেনার পাশাপাশি তা ব্যবহারে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলোতে দক্ষ জনশক্তি তৈরির নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দক্ষ জনশক্তি তৈরির জন্য প্রশিক্ষণের ব্যবস্থারও নির্দেশ দেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (২৮ জানুয়ারি) রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির বৈঠকে (একনেক) প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া এসব নির্দেশনার বিষয়ে পরে সংবাদ ব্রিফিংয়ে জানান পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। একনেকে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিনা।

মঙ্গলবার একনেকে ৯টি প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়। এতে বাস্তবায়ন খরচ ধরা হয়েছে ৪ হাজার ৩২৪ কোটি ৬১ লাখ কোটি টাকা। এর মধ্যে সরকারি তহবিল থেকে ৪ হাজার ২৪৯ কোটি টাকা, বাস্তবায়নকারী সংস্থা থেকে ৫ কোটি ৬৮ লাখ টাকা এবং বৈদেশিক সহায়তা থেকে ৬৯ কোটি ৮৪ লাখ টাকা খরচ করা হবে ।

বিজ্ঞাপন

সবচেয়ে বেশি খরচ ধরা হয়েছে, সরকারি বেসরকারি অংশীদারিত্বের (পিপিপি) হাতিরঝিল-রামপুরা টু ডেমরা মহাসড়ক চারলেনে উন্নীত করার প্রকল্পে। এটি বাস্তবায়নে খরচ ধরা হয়েছে ১ হাজার ২০৯ কোটি টাকা।

অনুমোদিত প্রকল্প গুলো হচ্ছে, রংপুর সিটি করপোরেশনের জন্য যানবাহন ও যন্ত্রপাতি ক্রয় প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ১১৩ কোটি ৬৯ লাখ টাকা। রাজশাহী ওয়াসা ভবন নির্মাণ প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ৬৫ কোটি ৯৯ লাখ টাকা। ভান্ডাল জুড়ি পানি সরবরাহ প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ৯৫৮ কোটি ৮৫ কোটি টাকা। মোংলা বন্দর চ্যানেলের ইনার বারে ড্রেজিং প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ৭৯৩ কোটি ৭২ লাখ টাকা। নারায়ণগঞ্জ লিংক সড়ক ৬ লেনে উন্নীতকরণ প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ৪৪৯ কোটি ৫৮ লাখ টাকা।

পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশীপ (পিপিপি) ভিত্তিতে হাতিরঝিল-রামপুরা সেতু-বনশ্রী-শেখের জায়গা-আমুলিয়া-ডেমরা মহাসড়ক চারলেনে উন্নীতকরণের জন্য সহায়ক প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ১ হাজার ২০৯ কোটি ৬০ লাখ টাকা। আধুনিক প্রযুক্তি সম্প্রসারণের মাধ্যমে রাজশাহী বিভাগের কৃষি উন্নয়ন প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ১৪৭ কোটি টাকা। সুনামগঞ্জ জেলার দোয়ারাবাজার ও ছাতক উপজেলার আওতাধীন সুরমা নদীর ডান তীরে অবস্থিত দোয়ারাবাজার উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্স, লক্ষীবাউর ও বেতুরা এলাকায় নদী তীর সংরক্ষণ প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ১৯১ কোটি ৬৭ লাখ টাকা। মাদারীপুর জেলার শিবচর উপজেলায় আড়িয়াল খাঁ নদী তীর সংরক্ষণ ও ড্রেজিং প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ৩৯৪ কোটি ৪৭ লাখ টাকা।

পরিকল্পনা মন্ত্রীর ব্রিফিংয়ের সময় আরো উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনা সচিব নুরুল আমিন, সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য (সিনিয়র সচিব) ড. শামসুল আলম এবং ভৌত অবকাঠামো বিভাগের সদস্য শামীমা নার্গিস।

সারাবাংলা/জেজে/জেএএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন