বিজ্ঞাপন

স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা, বাঁচাতে গিয়ে গুরুতর আহত মা

January 29, 2020 | 1:29 pm

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

কুষ্টিয়া: কুষ্টিয়ায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যার পর মাকেও কোপানোর অভিযোগ উঠেছে আব্দুল আওয়াল নামে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। পুলিশ অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (২৯ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয় থানার হরিনারায়নপুরে এই ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে পুলিশ আব্দুল আওয়ালের স্ত্রী শাহানা খাতুনের (৩০) মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। এছাড়া আওয়ালের মা গুরুতর আহত জবেদা খাতুন (৬০) একই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর আরিফ জানান, হরিনারায়ণপুরের কুন্ডুপাড়ার ভ্যানচালক আব্দুল করিমের ছেলে রং মিস্ত্রী আব্দুল আওয়াল দীর্ঘদিন ধরে নেশাদ্রব্য গ্রহণ করেন। নেশার টাকা জোগাতে টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে প্রায়ই পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে বিরোধ হয় তার। বুধবার সকালেও স্ত্রীর কাছে টাকা চান তিনি। এর জের ধরে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে আওয়াল তার স্ত্রী শাহানাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথাড়ি কোপান। এসময় তার মা জবেদা খাতুন শাহানাকে বাঁচাতে এগিয়ে গেলে তাকেও কোপান আওয়াল। ঘটনাস্থলেই শাহানা মারা যান। গুরুতর অবস্থায় জবেদাকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

বিজ্ঞাপন

ঘটনার পর পর প্রতিবেশিরা আওয়ালকে আটক করে। পরে তাকে পুলিশে সোপর্দ করা হয় বলে জানান ওসি।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএমএন

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন