array(4) {
  [0]=>
  string(81) "https://sarabangla.net/wp-content/uploads/2020/02/Kabita-Utsab-02.02.20-30x23.jpg"
  [1]=>
  int(30)
  [2]=>
  int(23)
  [3]=>
  bool(true)
}
array(4) {
  [0]=>
  string(81) "https://sarabangla.net/wp-content/uploads/2020/02/Kabita-Utsab-02.02.20-30x23.jpg"
  [1]=>
  int(30)
  [2]=>
  int(23)
  [3]=>
  bool(true)
}
কবিতা অপার সুখ আবার দুঃখও

বিজ্ঞাপন

কবিতা অপার সুখ আবার দুঃখও

February 2, 2020 | 1:09 pm

পার্থ সনজয়

নিজেকে ক্ষয় করে করে লিখতে হয় কবিতা। তাই শিল্পের বিচারে কবিতা প্রতারক। উচ্চারণগুলো কবি মহাদেব সাহার। ৩৪ তম জাতীয় কবিতা উৎসবের উদ্বোধনে অসুস্থতায় তিনি আসতে না পারলেও পড়ে শোনানো তার লিখিত বক্তব্যে এমনই অলৌকিক এক আনন্দ ছড়িয়ে পড়লো মঞ্চ ছাপিয়ে সুদূর!

বিজ্ঞাপন

জাতীয় কবিতা পরিষদের আয়োজনে কবি ও কবিতায় এমনই সকাল নামলো রোববার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শুরু হওয়া দুই দিনের জাতীয় কবিতা উৎসবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় লাইব্রেরী প্রাঙ্গণে উৎসবের এবারের স্লোগান ‘মুজিব আমার স্বাধীনতার অমর কাব্যের কবি।’

বিজ্ঞাপন

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পার্ঘ্য নিবেদন আর জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম, শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন, পটুয়া কামরুল হাসানের সমাধিতেও ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়ে হাকিম চত্বর ভাসলো জাতীয় সঙ্গীতে। উড়লো জাতীয় পতাকা। গাওয়া হলোএকুশের গান এবং উৎসব সঙ্গীত। স্মরণ করা হলে সাম্প্রতিক সময়ে প্রয়াত শিল্পী-সাহিত্যিকদের।

উদ্বোধন পর্বটি সভাপতিত্ব করেন জাতীয় কবিতা পরিষদ সভাপতি কবি মুহাম্মদ সামাদ। বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক তারিক সুজাত।

এর পরই শুরু হয় দেশ-বিদেশের কবিদের কবিতা পাঠ। এ পর্বে সভাপতিত্ব করেন কবি দিলারা হাফিজ।

স্বদেশের কবিদের সঙ্গে উৎসবে অংশ নিচ্ছেন ভারত, সুইডেন, উজবেকিস্তান ও নেপালের অতিথি কবিবৃন্দ। বাংলাদেশসহ পাঁচ দেশের তিন শতাধিক কবি অংশ নিচ্ছেন এবারের উৎসবে। ঢাকার পাশাপাশি বিভিন্ন জেলাসহ বিদেশের মাটিতেও অনুষ্ঠিত হচ্ছে ৩৪তম উৎসবটি।

এবারের উৎসবে ভারত, সুইডেন, উজবেকিস্তান ও নেপালের অন্তত ১৫ কবি অংশগ্রহণ করেছেন। তাদের মধ্যে রয়েছেন সুইডেনের কবি ও সঙ্গীতশিল্পী সোদারহল এবং উজবেকিস্তানের কবি নাদিরা আবদুলাহয়েভে। ভারতের কবিদের মধ্যে রয়েছেন কলকাতার বীথি চট্টোপাধ্যায়, সেবন্তী ঘোষ, নীলাঞ্জনা বন্দ্যোপাধ্যায়, অমিত গোস্বামী, দীধিতি চক্রবর্তী ও আবৃত্তিশিল্পী সৌমিত্র মিত্র। অংশ নিচ্ছেন আসামের কবি অনুভব তুলাসি, আগরতলার রাতুল দেব বর্মণ, অর্পিতা আচার্য্য ও তমাল শেখর দে। অংশ নিচ্ছেন নেপালের কবি ড. তুলাসি দিওয়াসা।

এবারের উৎসবে ভাষাসংগ্রামী তিন কবিকে দেয়া হচ্ছে ‘জাতীয় কবিতা পরিষদ সম্মাননা’। তারা হলেন কবি আহমদ রফিক, গীতিকবি আবদুল গাফফার চৌধুরী ও কবি বোরহানউদ্দিন খান জাহাঙ্গীর।

দুপুরের পর দেশের নানা প্রান্ত থেকে সমাগত নবীন থেকে প্রবীণ কবিরা মেলে ধরবেন স্বরচিত কবিতাসম্ভারভিন্ন ভাষার কবিদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হবে কবিতা পাঠের দ্বিতীয় পর্ব। এ পর্বে সভাপতিত্ব করবেন আনোয়ারা সৈয়দ হক। আমন্ত্রিত কবিদের অংশগ্রহণে কবিতা পাঠের তৃতীয় পর্বে সভাপতিত্ব করবেন রুবী রহমান।

নূর-উল-আলম লেনিনের সভাপতিত্বে কবিতা পাঠের চতুর্থ পর্ব হবে সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায়। রাত আটটা থেকে নয়টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে আবৃত্তি পর্ব। এ পর্বের সভাপতিত্ব করবেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব আসাদুজ্জামান নূর।

কবিদের স্বরচিত কবিতাপাঠ, নিবেদিত কবিতা, সেমিনার ও সঙ্গীত পরিবেশনার মাধ্যমে উদ্ভাসিত হবে ‘মুজিববর্ষ’।

সারাবাংলা/পিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন