বিজ্ঞাপন

করোনা উদ্বেগে মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে যোগ দেবে না সনি-অ্যামাজন

February 10, 2020 | 10:39 pm

তথ্য প্রযুক্তি ডেস্ক

কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই শুরু হতে যাচ্ছে মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস (এমডব্লিউসি) ২০২০। কিন্তু করোনাভাইরাস নিয়ে উদ্বেগের কারণে একের পর এক প্রতিষ্ঠান এ দফায় অংশ না নেওয়ার ঘোষণা দিচ্ছে। সে তালিকায় এবারে যোগ হয়েছে সনি, অ্যামাজন ও এনভিডিয়া।

বিজ্ঞাপন

গেল সপ্তাহে সর্বপ্রথম মোবাইল কংগ্রেস থেকে প্রত্যাহার করে নেয়ার ঘোষণা দেয় এলজি ও জেডটিই। মোবাইল কংগ্রেসের সব ধরনের কার্যক্রম থেকে গুটিয়ে নেওয়ার ঘোষণা আসে এলজি’র তরফে। অন্যদিকে, জেডটিই তাদের সংবাদ সম্মেলনগুলো বাদ দেওয়ার কথা জানায়। সেইসঙ্গে পুরো আয়োজনে নিজেদের উপস্থিতি সীমিত রাখার দেয়। দু’দিন বাদেই তাদের পথে হাঁটে এরিকসন। প্রতিষ্ঠানটির তরফে বলা হয় কর্মর্তা-কর্মচারী ও ক্রেতাদের স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করা সম্ভব হবে না বিধায় তারা যোগ দেবে না। এর বদলে তারা ‘এরিকসন আনবক্সড’ নামে অনুষ্ঠানের আয়োজন করবে স্থানীয়ভাবে।

অ্যামাজন টেকক্রাঞ্চে দেওয়া এক বিবৃতিতে তাদের সিদ্ধান্ত ঘোষণা দেয়। বলা হয়, ‘নতুন করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ও বিদ্যমান উদ্বেগগুলোর কারণে অ্যামাজন মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস ২০২০-এ প্রদর্শনী ও অংশ নেওয়া থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নেয়। সনি তাদের বিবৃতিতে বলেছে, ‘নতুন করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাব, যা বৈশ্বিকভাবে জরুরি স্বাস্থ্য অবস্থা হিসেবে ঘোষণা দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এবং এরপর যে পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, তা নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ  করছে সনি।’

বিজ্ঞাপন
করোনা উদ্বেগে মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে যোগ দেবে না সনি-অ্যামাজন

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ‘আমাদের ক্রেতা, অংশীদার, গণমাধ্যম এবং এগুলোতে কর্মরত কর্মীদের নিরাপত্তা ও ভালো থাকার বিষয়টি আমাদের কাছে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ হওয়ায় স্পেনের বার্সেলোনায় অনুষ্ঠিতব্য এমডব্লিউসি ২০২০-এ প্রদর্শনীর পাশপাশি অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

এর পরিবর্তে প্রতিষ্ঠানটি তাদের অফিসিয়াল এক্সপেরিয়া ইউটিউব চ্যানেলে ২৪ ফেব্রুয়ারি এক প্রেস কনফারেস। এমডব্লিউসি’র অন্যতম পৃষ্ঠপোষেক এনভিডিয়াও একইরক ঘোষণা দিয়েছে। এতে বলা হয়, ‘করোনাভাইরাসকে ঘিরে সর্বত্র জনস্বাস্থ্য ঝুঁকি। আমাদের সহকর্মী, অংশীদার এবং ক্রেতারা সবসময় আমাদের সবচেয়ে বড় উদ্বেগের জায়গা।’ ব্লুমবার্গের রিপোর্টে বলা হয়, বিটি গ্রুপ ও নকিয়া পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে বলে জানিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

এমডব্লিউসি আয়োজকপক্ষ জিএসএমএ সপ্তাহান্তে প্রকাশিত বিবৃতিতে বলেছে, দর্শনার্থী ও প্রদর্শনার্থীদের স্বাস্থ্য ও সুরক্ষা আয়োজকদের কাছে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার— এটা নতুন করে তাদের আশ্বস্ত করার জন্য আরও নানা পদক্ষেপের ঘোষণা শিগগিরই আসছে বলে জানানো হয়। তবে, আয়োজন বাতিল করে দেওয়া তালিকায় নেই। বরং চীনের হুবেই প্রদেশ থেকে ভ্রমণরত কাউকে অনুষ্ঠানে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে না। যারা সাম্প্রতিক সময়ে চীন সফর করেছেন, তাদের প্রমাণ দেখাতে হবে যে চীন থেকে বের হওয়ার পর অন্তত দু’সপ্তাহ সময় দেশের বাইরে ছিলেন। আর দর্শনার্থীদেরও যথাযথ তথ্য দিয়ে নিশ্চিত করতে হবে যে তারা আক্রান্ত কারো কাছে যাননি।

এছাড়া সেখানে তামপাত্রা পরিমাপের ব্যবস্থা থাকবে। আয়োজনের ব্যস্ততম টাচপয়েন্টগুলোতে পরিচ্ছন্ন ও সংক্রমণমুক্ত রাখার জন্য আগের তুলনায় বেশি জোরেশোরে কার্যক্রম চলবে।

সারাবাংলা/এইচএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন