বিজ্ঞাপন

প্রাথমিকে শিক্ষকের শূন্য পদ ২৮৮৩২

February 11, 2020 | 7:18 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

সংসদ ভবন থেকে: সারাদেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে ২৮ হাজার ৮৩২ জন শিক্ষকের পদ শূন্য রয়েছে বলে জাতীয় সংসদে জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, এর মধ্যে প্রধান শিক্ষকের শূন্যপদের সংখ্যা ৭ হাজার ১৮টি। আর সহকারী শিক্ষকের শূন্য পদ ২১ হাজার ৮১৪টি। সহকারী শিক্ষকের শূন্য পদ পূরণে এরই মধ্যে চূড়ান্ত নির্বাচিত প্রার্থীদের যোগদানের জন্য পরিপত্র জারি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১১ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় সংসদ অধিবেশনে প্রশ্নোত্তর পর্বে তিনি এ তথ্য জানান। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশনের কার্যক্রম শুরু হয়।

বিজ্ঞাপন

সরকার দলীয় সংসদ সদস্য মামুনুর রশীদ কিরনের প্রশ্নের লিখিত জবাবে প্রতিমন্ত্রী আরও জানান, দেশের ৬৪টি জেলার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের ৭ হাজার ১৮টি শূন্য পদের মধ্যে পদোন্নতিযোগ্য শূন্য পদ ৪ হাজার ১৬৬টি, সরাসরি নিয়োগের যোগ্য শূন্য পদ ২ হাজার ৮৫২টি। ২৫ শতাংশ বা সরাসরি নিয়োগের জন্য ৩৭তম বিসিএস থেকে পিএসসির মাধ্যমে নিয়োগের জন্য ২০১৯ সালের ২৬ জন প্রয়োজনীয় তথ্য বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের (পিএসসি) নির্ধারিত ফরমে মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে।

একই প্রশ্নের জবাবে জাকির হোসেন জানান, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষকদের প্রধান শিক্ষক পদে পদোন্নতির বিষয়ে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালা-২০১৩, অধিগ্রহণ করা বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক (চাকরির শর্ত নির্ধারণ) বিধিমালা-২০১৩ ও নন ক্যাডার কর্মকর্তা-কর্মচারী জ্যেষ্ঠতা ও পদোন্নতি বিধিমালা-২০১১ নীতিমালা অনুযায়ী প্রধান শিক্ষক পদে পদোন্নতি দেওয়া হয়। তবে আদালতে মামলা থাকায় প্রধান শিক্ষক পদে পদোন্নতি বন্ধ রয়েছে। জ্যেষ্ঠ সহকারী শিক্ষকদের মধ্য থেকে প্রধান শিক্ষকদের চলতি দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী আরও জানান, ৬১টি জেলায় সহকারী শিক্ষকের ১৮ হাজার ১৪৭টি পদ পূরণের জন্য ২০১৯ সালের ২৪ ডিসেম্বর চূড়ান্তভাবে নির্বাচিতদের নিয়োগপত্র জারি করা হয়েছে। শিগগিরই এসব শিক্ষক যোগ দেবেন। এছাড়া তিন পার্বত্য জেলায় জেলা পরিষদের তত্ত্বাবধানে স্থানীয়ভাবে শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হয়।

সারাবাংলা/এএইচএইচ/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন