শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৬, ৩ রজব ১৪৪১

বিজ্ঞাপন

অনলাইনে জুয়া খেলায় ১৬ জন গ্রেফতার

ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২০ | ১০:২৬ অপরাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম ব্যুরো: ‘বিট-৩৬৫’ নামে অনলাইনভিত্তিক জুয়ায় জড়িত ১৬ জনকে গ্রেফতার করেছে চট্টগ্রাম নগরীর কোতোয়ালী থানা পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে, এই জুয়ার আসরটি অনলাইনে পরিচালিত হয় বিদেশ থেকে যেখানে বাংলাদেশি মুদ্রাকে ডলারে রূপান্তরিত করে খেলা চলে। এর মাধ্যমে বিদেশে টাকা পাচার করা হয়েছে বলেও ধারণা পুলিশের।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) গভীর রাতে নগরীর তামাকুমিন্ড লেইন থেকে শুরু হয় অনলাইন জুয়াড়িদের বিরুদ্ধে পুলিশের অভিযান। এসময় দুটি স্পট থেকে ১৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি-দক্ষিণ) শাহ মো. আব্দুর রউফ।

গ্রেফতার ১৬ জনের মধ্যে ১১ জন সাধারণ জুয়াড়ি এবং তিনজন ওই অনলাইনের এজেন্ট বলে জানিয়েছেন এডিসি রউফ।

বিজ্ঞাপন

গ্রেফতার ১১ জন হলো- মো. শিপু (৩২), ইমান আলী মিঠু (৩০), আমজাদ হোসেন রুবেল (২৯), মো. শাহ আলম (৩১), মো. ওসমান (৩৭), আব্দুল সফুর নয়ন (৩০), মো. রানা (২৬), বিপ্লব চৌধুরী (৩২), মো. রায়হান ইসলাম (৩১), মো. ফারুক (২৫), বেলাল উদ্দিন (২৭), মো. সানি (২৩), রাজু বণিক (২০), আব্দুল ওয়াহেদ (২৬) ও নজরুল ইসলাম (৩০)।

কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসিন সারাবাংলাকে বলেন, ‘তরুণ-যুবক থেকে বিভিন্ন বয়সী লোকজন বুঝে না বুঝে এই অনলাইন জুয়ায় জড়িয়ে পড়ছে। জুয়া খেলে কেউ অনেক টাকা ইনকাম করতে পেয়েছে এমন নয়, বরং লাখ লাখ টাকা হারাচ্ছে। এরপরও বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ জুয়ায় জড়িয়ে পড়ছে। চট্টগ্রাম শহরের অন্তঃত ১০টি পয়েন্টে গত তিন মাস ধরে এই জুয়া চলছে। ভারতের আইপিএল, বাংলাদেশের বিপিএলের পাশাপাশি অস্ট্রেলিয়ার বিগব্যাশ নিয়েও জুয়া খেলেছে তারা। মূলত টেলিভিশনে লাইভ দেখানো ফুটবল এবং ক্রিকেট ম্যাচ নিয়ে চলে এসব জুয়া।’

অভিযানে অংশ নেওয়া কোতোয়ালী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সজল দাশ সারাবাংলাকে জানান, প্রাথমিকভাবে বিট-৩৬৫ নামে একটি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে এই জুয়াখেলার প্রমাণ তারা পেয়েছেন। এর বাইরে আরও কয়েকটি অ্যাপস এবং সফটওয়্যার ব্যবহার করা হচ্ছে। সাধারণ জুয়াড়িদের এই ওয়েবসাইটে সরাসরি প্রবেশাধিকার নেই। এজেন্ট যারা আছে তাদের পাসওয়ার্ডের মাধ্যমে প্রবেশ করতে হয়। এজেন্টরা বাংলাদেশি টাকা নিয়ে ডলারে রূপান্তর করে খেলার সুযোগ দেয়।

টাকাকে ডলারে রূপান্তর করায় বিদেশে পাচারের ধারণা করা হচ্ছে জানিয়ে এডিসি আব্দুর রউফ সারাবাংলাকে বলেন, ‘যে ওয়েবসাইট দিয়ে জুয়া খেলা হচ্ছে, আমাদের ধারণা এর ডোমেইন বিদেশের। এটা লোকাল কোনো ডোমেইন না। এ কারণে ডলারের বিনিময়ে খেলা হচ্ছে। আমরা তদন্ত করে দেখছি। যদি বিদেশি ডোমেইন হয়, তাহলে কয়েক কোটি টাকা বিদেশে পাচার হয়ে যাওয়া অস্বাভাবিক কিছু না।’

সারাবাংলা/আরডি/এমও

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন