বিজ্ঞাপন

উহান ফেরতদের জন্য আইসিডিডিআরের ৯ নির্দেশনা

February 17, 2020 | 3:11 am

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: জাতীয় রোগ তত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর) জানিয়েছে, ইতোপূর্বে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইন করে রাখা উহান ফেরত ৩১২ জন বাংলাদেশির সবাই সুস্থ আছেন। তবে, অতিরিক্ত সতকর্তা হিসেবে তাদেরকে কন্ডিশনাল রিলিজ দেওয়া হয়েছে। আগামী দশ দিনের মধ্যে তাদের শরীরে কভিড-১৯ রোগের কোনো লক্ষণ বা উপসর্গ দেখা দিলে আইইডিসিআরকে সঙ্গে সঙ্গে জানাতে হবে। রোববার (১৬ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর মহাখালীতে করোনাভাইরাস নিয়ে আইইডিসিআরের নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে এ সব কথা বলেন প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।

বিজ্ঞাপন

এছাড়াও, কোয়ারেন্টাইন পরবর্তী সময়ে উহান ফেরতদের মেনে চলার জন্য নয় নির্দেশনা দিয়েছে আইসিডিডিআর।

নির্দেশনাগুলো হলোঃ-

বিজ্ঞাপন

১. কোয়ারেন্টাইন থেকে যে যানবাহনে (বাস/ ট্রেন/ লঞ্চ/ বিমান) বাড়ি ফিরবে তার নাম, নম্বর, যাত্রার সময় আইইডিসিআরকে জানাতে হবে। যানবাহনে অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করতে হবে।

২. মৃদু অসুস্থতার ক্ষেত্রে নিজ ঘরে অবস্থান করতে হবে। নাক-মুখ ঢাকার জন্য বাড়িতেও মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। জরুরি প্রয়োজন না হলে, যে বাড়িতে থাকবেন অপরিবর্তিত রাখতে হবে।

৩.পরিবার থেকে নির্দিষ্ট একজন রোগীর সেবা করবেন। তিনি মাস্ক ব্যবহার করবেন ও প্রতিবার রোগীর সংস্পর্শে আসার পর মাস্কটি ঢাকনা যুক্ত বিনে ফেলবেন এবং সাবান-পানি দিয়ে দুই হাত ধুয়ে ফেলবেন (অন্তত ২০ সেকেন্ড যাবৎ)। যথাসম্ভব জনসমাগম এড়িয়ে চলতে হবে। বাসার বাইরে যাওয়া অত্যাবশ্যক হলে নাক-মুখ ঢাকার জন্য মাস্ক ব্যবহার করতে হবে।

৪. নিয়মিত সাবান ও পানি দিয়ে দুই হাত ধুয়ে নিতে হবে (অন্তত ২০ সেকেন্ড যাবৎ)।

৫. অপরিষ্কার হাতে চোখ, নাক ও মুখ স্পর্শ করা যাবে না।

৬. হাঁচি/ কাশি দেওয়ার সময় হাত/ টিস্যু/ কাপড় দিয়ে নাক-মুখ ঢেকে রাখতে হবে।

৭. অসুস্থ পশুপাখির সংস্পর্শ পরিহার করতে হবে।

৮. মাছ, মাংস, ডিম ভালোভাবে রান্না (উচ্চতাপমাত্রায় সিদ্ধ) করে খেতে হবে।

৯. শারীরিক অসুস্থতা (জ্বর, কাশি, শ্বাসকষ্ট ইত্যাদি) দেখা দিলে আইইডিসিআর হটলাইন নম্বরে যোগাযোগ করে পরবর্তী করণীয় জেনে নিতে হবে।

এদিকে, ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইন করে রাখার পর ১০ দিনের অতিরিক্ত নজরদারি কেনো, এমন প্রশ্নের জবাবে অধ্যাপক ডা. মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা জানান, যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনের (ইউএস সিডিসি) এক গবেষণাপত্রে সন্দেহভাজনদের ২৪ দিন পর্যবেক্ষণে রাখার পরামর্শ পাওয়া গেছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) ডকুমেন্টে সর্বোচ্চ ১৪ দিন আইসোলেশনের কথা বলা আছে। বাকি ১০ দিন অতিরিক্ত সতর্কতা হিসেবে তাদেরকে নেটওয়ার্কের মধ্যে রাখছে আইসিসিডিআর।

তিনি আরও বলেন, ৩১২ জনের যোগাযোগের ফোন নম্বর, ঠিকানাসহ সব তথ্য রেখে দিয়েছে আইইডিসিআর। এছাড়াও, তারা যেখানে থাকবেন সংশ্লিষ্ট সিভিল সার্জন অফিস বা স্বাস্থ্য অধিদফতর নিয়মিত তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করবে।

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর ফেব্রুয়ারির ১ তারিখে চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহান থেকে দেশে ফিরিয়ে আনা হয় ৩১২ জন বাংলাদেশিকে। ডব্লিউএইচও'র নির্দেশনা অনুযায়ী, রাজধানীর আশকোনা হজ ক্যাম্পে তাদেরকে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইন করে রাখা হয়। কোয়ারেন্টাইন দশা শেষে শনিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) কন্ডিশনাল রিলিজ পান তারা।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন