বিজ্ঞাপন

একুশের প্রথম প্রহরে ভাষাশহিদদের সম্মান জানাতে নদীয়া থেকে ঢাকায়

February 21, 2020 | 5:51 am

রাজনীন ফারজানা, সিনিয়র নিউজরুম এডিটর

ঢাকা:একুশের প্রথম প্রহরে কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে গিয়ে ভাষাশহিদদের শ্রদ্ধা জানাবেন বলে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নদীয়া থেকে বাংলাদেশে এসেছেন ২৮ জনের একটি দল। শান্তিগড় পূর্ণিমা মিলনী সংঘের ব্যনারে দুই বছর ধরে তারা ঢাকায় আসছেন ভাষা শহিদদের সম্মান জানাতে।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) রাতে তারা ঢাকা পৌঁছে সোজা চলে আসেন কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে।

একুশের প্রথম প্রহরে কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে ফুল দিয়ে ভাষাশহিদদের সম্মান জানাতে চাইলেও শহিদ মিনারে মানুষের প্রচণ্ড ভিড়ের কিছুটা দেরি হয়ে যায়। রাত ৩টার দিকে তারা ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশের ফেব্রুয়ার’ গানটির সঙ্গে সুর মিলিয়ে শহীদ মিনারের মূল বেদিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানাতে উঠেন।

বিজ্ঞাপন

একুশের প্রথম প্রহরে ভাষাশহিদদের সম্মান জানাতে নদীয়া থেকে ঢাকায়

নদীয়া চেম্বার অব কমার্সের পক্ষ থেকে দুই দিনের বাংলাদেশে সফরে তারা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপনের পাশাপাশি নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্সের সঙ্গে একটি প্রীতি ফুটবল ম্যাচও খেলবেন।

বিজ্ঞাপন

ভাষাশহিদদের শ্রদ্ধা জানাতে আসা সুপ্রিয়া দত্ত। তিনি জানান, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে তাদের দেশে সরকারি ছুটি থাকে। দিবসটি সেখানে বেশ বড় করে উদযাপন করা হলেও ঢাকার মতো নয়। ঢাকায় যেমন রাত ১২টা থেকে প্রভাতভেরি শুরু হয়, পশ্চিমবঙ্গে শুরু হয় ভোর থেকে।

নদীয়া চেম্বার অব কমার্সের সদস্য ব্রজন্দ্রেনাথ সরকার বললেন, ‘প্রকৃত বাংলা ভাষা বাংলাদেশেই টিকে আছে। ভারতে বাংলা ভাষা বহু ভাষার সঙ্গে মিশে একটি জগাখিচুড়ি ভাষায় পরিণত হয়েছে।’

বিজ্ঞাপন

এছাড়া ভারতীয় নাগরিক বিমান বর্ধন বলেন, ‘টেলিভিশনে বাংলাদেশের একুশে ফেব্রুয়ারিতে মাতৃভাষা উদযাপনের জাকজমক দেখেছেন। তাই এবার নিজের চোখে দেখার জন্য ঢাকায় এসেছেন।’

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/আরএফ/এমআই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন